ইভার বিয়ে নিয়ে গোপন তথ্য ফাঁস করলেন মাহফুজুর রহমান

বিনোদন ডেস্ক- টিভি চ্যানেল এটিএন বাংলার চেয়ারম্যান ড. মাহফুজুর রহমানের সঙ্গে বিচ্ছেদের পর দ্বিতীয় বিয়ে করেছেন কণ্ঠশিল্পী ও সাবেক সংবাদ পাঠিকা ইভা রহমান। তার নতুন স্বামীর নাম সোহেল আরমান। তিনি ঢাকার ছেলে। পেশায় ব্যবসায়ী।

গেলো রোববার (১৯ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর গুলশানে ইভার বাসায় একদম ঘরোয়া আয়োজনে ইভা-আরমানের বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়েছে। তাদের বিয়েতে কাছের কিছু আত্মীয়-স্বজন উপস্থিত ছিলেন। বর্তমানে নতুন স্বামীর সঙ্গে ঢাকার গুলশানে বসবাস করছেন ইভা রহমান।

দ্বিতীয় বিয়ের পরই নিজের পুরনো নাম মুছে ফেলেছেন ইভা। গণমাধ্যমের কাছে তিনি বলেন, ‘এখন থেকে আমাকে ইভা রহমান নয়, ইভা আরমান বলে ডাকবেন।’

এদিকে সাবেক দম্পতি মাহফুজুর রহমান-ইভা রহমানকে নিয়ে যখন আলোচনা তুঙ্গে ঠিক সেসময় মাহফুজুর রহমানের পুরনো একটি সাক্ষাৎকারের ভিডিও নিজের ভেরিফায়েড ইউটিউব চ্যানেলে নতুন করে আপলোড করেছেন উপস্থাপক,

অভিনেতা ও নির্মাতা শাহরিয়ার নাজিম জয়। গেলো মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) আপলোড করা ভিডিওটি এখন পর্যন্ত ১ লাখ ৭২ হাজারের বেশি বার দেখা হয়েছে।

ভিডিওটি দেখেই বুঝা যাচ্ছে, সেটি এটিএন বাংলার জনপ্রিয় রম্য ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘সেন্স অব হিউমার’ এর একটি অংশ। শাহরিয়ার নাজিম জয়ের উপস্থাপনায় সেখানে অতিথির আসনে বসা ছিলেন ড. মাহফুজুর রহমান।

তারকাদের জীবনের নানা গোপন তথ্য ফাঁস করে ইতিমধ্যেই আলোচিত হয়ে উঠেছে অনুষ্ঠানটি। এটি তৈরি হয়েছে দেশের বিভিন্ন অঙ্গনের সেলিব্রেটিদের নিয়ে। সেই অনুষ্ঠানে খোলামেলা আলাপে সেলিব্রেটিরা নির্দ্বিধায় বলে ফেলেন তাদের না বলা অনেক কথা। ভুলে যান সেটি একটি টিভি অনুষ্ঠান।ভিডিওতে দেখা যায়- ড. মাহফুজুর রহমানের মুখোমুখি বসে আছেন শাহরিয়ার নাজিম জয়। তিনি মাহফুজুর রহমানের উদ্দেশ্যে প্রশ্ন করেন, ইভা রহমানকে প্রথম আপনার ভালো লেগেছিলো কবে, কখন এবং কীভাবে?সঞ্চালকের প্রশ্নের জবাবে ড. মাহফুজুর রহমান বলেন, ‘সবাই মনে করে ইভা রহমানের সঙ্গে আমার প্রেম করে বিয়ে। কিন্তু এটা ভুল ধারণা। এটা প্রেম ছাড়া বিয়ে।’কথার রেশ টেনে তিনি বলতে থাকেন, ‘কোনো কারণে আমি সিদ্ধান্ত নিলাম বিয়ে করবো। তখন আমি মেয়ে খোঁজা শুরু করলাম। কিন্তু কেউ বিশ্বাস করে না আমি বিয়ে করবো। সেসময় আমি ইভা রহমানকে প্রপোজ করলাম। প্রপোজ করার পর সে (ইভা) বললো- স্যার আপনি কি সত্যিই বিয়ে করতে চান? আমি বললাম- হ্যাঁ, সত্যিই বিয়ে করতে চাই। তখন সে (ইভা) বললো- তাহলে স্যার আমাকে একটু চিন্তা করতে দেন। আমি বললাম- ঠিক আছে, করেন। চিন্তা করার ১০ দিন পর সে জানালো- সত্যি স্যার আপনি যদি বিয়ে করেন, তাহলে করবো।এ সময় জয় ড. মাহফুজুর রহমানের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘স্যার ঠিক ওই মুহূর্তটাকে চিন্তা করে যদি একটু নস্টালজিতে ফিরে যাই, ইভা রহমান আপনার সামনে বসা, আপনি একটি গান শোনাচ্ছেন। কি গান শোনাবেন? সে গানের দুটো লাইন শুনতে চাই।’তখন ড. মাহফুজুর রহমান গেয়ে ওঠেন, ‘তোমাকে দেখে মন ভালো হয়ে যায়, মন ভালো হয়ে যায়…।’ এরপর তারা অন্যান্য বিষয় নিয়েও কথা বলেন।প্রসঙ্গত, এটিএন বাংলায় সংবাদ পাঠক হিসেবে চাকরি শুরু করেন ইভা রহমান। সেই সুবাদেই চ্যানেলটির চেয়ারম্যান মাহফুজুর রহমানের সঙ্গে পরিচয়। অত:পর বিয়ে করেন তারা।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *