এক দিনের ব্যবধানে ফের মৃত্যু বাড়ল

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ২০ জনের মৃ’ত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট দেশে করোনায় মা’রা গেলেন ২৭ হাজার ৬৭৪ জন।

এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৪১৫ জনের দেহে করোনা শ’নাক্ত হয়েছে। এ পর্যন্ত মোট করোনায় আ’ক্রান্ত হয়েছেন ১৫ লাখ ৬১ হাজার ৮৭৮ জন।

শনিবার (৯ অক্টোবর) স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।

এদিকে, চলমান করোনা মহামারিতে বিশ্বজুড়ে কমেছে দৈনিক মৃ’ত্যু ও শনাক্ত। আগের দিনের তুলনায় উল্লেখযোগ্য পরিমাণে বেড়েছে বেড়েছে সুস্থতার হার।

গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনা আ’ক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৭ হাজার ৫৩২ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় মৃ’ত্যুর সংখ্যা কমেছে ৩৫২ জনের।

এ নিয়ে বিশ্বে মোট মৃ’ত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪৮ লাখ ৫৬ হাজারের বেশি।নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৪ লাখ ৪২ হাজার ৭৩১ জন। আগের দিনের তুলনায় নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা কমেছে ২৬ হাজার ৩৪৩ জন।

এ নিয়ে বিশ্বে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৩ কোটি ৭৯ লাখের বেশি। করোনাভাইরাসে আ’ক্রান্ত ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা আন্তর্জাতিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটার থেকে শনিবার (৯ অক্টোবর) সকালে এ তথ্য জানা গেছে।

ওয়ার্ল্ডওমিটারের সবশেষ তথ্য অনুযায়ী, একদিনে সুস্থ হয়ে ওঠেছেন ৫ হাজার ৪২ জন। এ নিয়ে মোট সুস্থ হয়েছেন ২১ কোটি ৫১ লাখ ১১ হাজার ৭২০ জন।ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্য অনুযায়ী, করোনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও মৃ’ত্যু হয়েছে বিশ্বের ক্ষমতাধর দেশ যুক্তরাষ্ট্রে। তালিকায় শীর্ষে থাকা দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ৪ কোটি ৫১ লাখ ৩৫ হাজার ৬২০ জন। মারা গেছেন ৭ লাখ ৩২ হাজার ৮৬০ জন।

করোনায় আক্রান্তের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে প্রতিবেশী দেশ ভারত। দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ কোটি ৩৯ লাখ ৩৪ হাজার ৩৩৫ জনে। মৃ’ত্যু হয়েছে ৪ লাখ ৫০ হাজার ৪০৮ জনের। ল্যাটিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল করোনায় আ’ক্রান্তের দিক থেকে তৃতীয় ও মৃ’ত্যুর সংখ্যায় তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে। দেশটিতে মোট শ’নাক্ত রোগী ২ কোটি ১৫ লাখ ৫০ হাজার ৭৩০ জন। সবমিলিয়ে মৃ’ত্যু হয়েছে ৬ লাখ ৪’শ ৯৩ জনের।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে বিশ্বের প্রথম করোনায় আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। করোনায় প্রথম মৃ’ত্যুর ঘ’টনাটিও ঘটেছিল চীনে। তারপর অত্যন্ত দ্রুতগতিতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটি। পরিস্থিতি সামাল দিতে ২০২০ সালের ২০ জানুয়ারি বিশ্বজুড়ে জরুরি অবস্থা জারি করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *