কস্ট সহ্য করতে না পেরে স্বামীর নিচের অংশ কে’টে প্রাণে শেষ করলেন স্ত্রী

ভোলার লালমোহন উপজেলার ধলিগৌরনগর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের দরবেশ বাড়িতে কষ্ট সহ্য করতে না পেরে স্বামীর বি’’শেষ অ’’ঙ্গ ও গ’’লা’’কে’’টে হ’’ত্যা করেছে স্ত্রী। পুলিশের কাছে এমনই স্বীকারোক্তি দিয়েছেন স্ত্রী নূরুন্নাহার।

স্ত্রী জানিয়েছেন, স্বামী তাকে কষ্ট দিতো এই ক্ষোভ থেকে তিনি হ’’’’ত্যা করেছেন। রোববার দুপুরে নিজ বসতঘর থেকে আব্দুল মান্নান বেপারী (৪০) নামের এক কাঠ ব্যবসায়ীর বি’’শে’’ষ অ’’ঙ্গ ও গলাকা’’টা লা’’শ উদ্ধার করে পুলিশ।

ঘটনার পর দুই সন্তান নিয়ে পালিয়ে যান ওই ব্যবসায়ীর স্ত্রী নূরুন্নাহার। সন্ধ্যার দিকে ওই ইউনিয়নের নতুন মসজিদ এলাকা থেকে তাকে আটক করে পুলিশ।

ঘটনা নিয়ে রাতে লালমোহন থানায় প্রেস ব্রিফিং করেন ভোলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) আবুল কালাম আজাদ। এই পুলিশ কর্মকর্তা জানান,

কাঠ ব্যবসায়ী আ. মান্নান বেপারীকে রোববার সকাল ৬টার দিকে নিজ ঘরে ঘুমন্ত অবস্থায় দা দিয়ে কু’’পি’’য়ে হ’’ত্যা করেন স্ত্রী নূরুন্নাহার।

পরে নিজের ৫ ও ৭ বছরের দুই সন্তানকে নিয়ে পালিয়ে যান তিনি। হত্যার ঘটনা স্বীকার করে স্ত্রী নূরুন্নাহার পুলিশকে বলেছেন, স্বামী তাকে কষ্ট দিতো, এ কারণে তিনি স্বামীকে হ’’’’ত্যা করেছেন। এ ঘটনায় নি’’হ’’তে’’র ভাই বাদি হয়ে লালমোহন থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *