ছেলের জন্য দেখা পাত্রীকে নিজেই বিয়ে করলেন বাবা

৬৫ বছর বয়সী এক বৃদ্ধ বিয়ে করেছেন তার ছেলের জন্য ঠিক করা ২১ বছর বয়সী পাত্রীকে। সম্প্রতি অদ্ভূত এ ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের বিহারের পাটনার সমশটিপুর জেলায়।

জানা গেছে, ওই ব্য’ক্তির নাম রোশান লাল, থাকেন পাটনা শহরেই। তিনি তার ছেলের জন্য পাত্রী খুঁজছিলেন এবং অবশেষে ২১ বছর বয়সী স্বপ্নার সঙ্গে বিয়ের কথা পাকাপাকিও হয়।

পাত্রীও একই এলাকায় থাকতেন। দুই পরিবারের সম্মতিতেই রোশান লালের ছেলের সঙ্গে স্বপ্নার বিয়ে ঠিক হয়। মহাধুমধামে শুরু হয় বিয়ের প্রস্তুতি। দুই পরিবারই আমন্ত্রণপত্র বিলি করে। কথামতো বিয়ের দিন হলে উপস্থিত হন অতিথিরাও।

তবে নববধূ আশা নিয়ে অপেক্ষা করলেও বরের দেখা আর মেলে না। পরে খোঁ’জাখুঁজি শেষে জা’না যায় বর তার প্রেমিকাকে নিয়ে পালিয়েছেন। ছেলে-মেয়ের পরিবারের কেউই বিষয়টি জানতেন না। বিয়ের অনুষ্ঠানে অসংখ্য অতিথির সামনে দুই পরিবারই লজ্জায় প’ড়েন।

রোশান লাল কনের মা-বাবাকে জিজ্ঞাসা করেন, এখন কী করা যেতে পারে? স্বপ্নার মা-বাবা তাদের সম্মান বাঁ’চাতে চান এবং বলেন বিয়ের অনুষ্ঠান ব’ন্ধ করা যাবে না। অবশেষে তারা রোশান লালকে অনুরো’ধ করেন, তিনি যেন তাদের কন্যাকে বিয়ে করেন।

চিন্তিত রোশান লাল প্রথমে রাজি না হলেও পরে স্বপ্নাকে বিয়ে ক’রতে রাজি হন। এ প’রিস্থিতি দেখে আমন্ত্রিত অতিথিরাও অ’বাক হয়ে যান! জা’না গেছে, ওই ব্য’ক্তির নাম রোশান লাল,

থাকেন পাটনা শহরেই। তিনি তার ছেলের জন্য পাত্রী খুঁজছিলেন এবং অবশেষে ২১ বছর বয়সী স্বপ্নার স’ঙ্গে বিয়ের কথা পাকাপাকিও হয়। পাত্রীও একই এলাকায় থাকতেন।দুই পরিবারের সম্মতিতেই রোশান লালের ছেলের স’ঙ্গে স্বপ্নার বিয়ে ঠিক হয়। মহাধুমধামে শুরু হয় বিয়ের প্র’স্তুতি। দুই পরিবারই আমন্ত্রণপত্র বিলি করে। কথামতো বিয়ের দিন হলে উপস্থিত হন অতিথিরাও।তবে নববধূ আশা নিয়ে অপেক্ষা করলেও বরের দেখা আর মেলে না। পরে খোঁ’জাখুঁজি শেষে জা’না যায়, বর তার প্রেমিকাকে নিয়ে পালিয়েছেন। ছেলে-মেয়ের পরিবারের কেউই বিষয়টি জানতেন না।বিয়ের অনুষ্ঠানে অসংখ্য অতিথির সামনে দুই পরিবারই লজ্জায় প’ড়েন। রোশান লাল কনের মা-বাবাকে জিজ্ঞাসা করেন, এখন কী করা যেতে পারে? স্বপ্নার মা-বাবা তাদের সম্মান বাঁ’চাতে চান এবং বলেন বিয়ের অনুষ্ঠান ব’ন্ধ করা যাবে না।অবশেষে তারা রোশান লালকে অনুরো’ধ করেন, তিনি যেন তাদের কন্যাকে বিয়ে করেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *