দ্বিতীয় বউ রেখে অন্যের বউকে নিয়ে উধাও ছাত্রলীগ নেতা

মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলায় দুই বিয়ের পর অন্যের স্ত্রীকে নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে জেলা ছাত্রলীগের নেতা রুবেল ইসলাম জয়ের বিরুদ্ধে।

রোববার (১৪ নভেম্বর) এ ঘটনায় নারীর স্বামী বাদী হয়ে শ্রীনগর থানায় অভিযোগ করেছেন।এর আগে গত ১১ নভেম্বর শ্রীনগর উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচন চলাকালে দুই সন্তানের জননীকে নিয়ে উধাও হন তিনি।

অভিযুক্ত ব্যক্তি মুন্সিগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সহসম্পাদক ও শ্রীনগর উপজেলার কোলাপাড়া গ্রামের গাবতলা এলাকার বাবু মিয়ার ছেলে রুবেল ইসলাম জয় (৩০)।

স্থানীয়রা জানান, গত ১১ নভেম্বর ইউপি নির্বাচনের দিন সবাই ব্যস্ত থাকায় গৃহবধূকে নিয়ে পালিয়ে যান রুবেল। এর আগেও দুটি বিয়ে করেন রুবেল। প্রথম স্ত্রীর সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হওয়ার পর দ্বিতীয় বিয়ে করেন তিনি।

ওই সংসারে তার এক সন্তান রয়েছে। এদিকে রুবেল এলাকায় ইয়াবা সেবনকারী হিসেবে পরিচিত। এর আগে তার ইয়াবা সেবনের ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়। পরে তিনি বিদেশ চলে যান।

পালিয়ে যাওয়া গৃহবধূর স্বামী অভিযোগ করেন, তার স্ত্রী রুবেলের সঙ্গে পালিয়ে যাওয়ার সময় আড়াই ভরি স্বর্ণালংকার ও দুই লাখ টাকা নিয়ে গেছেন।

বিষয়টি রুবেলের বড় ভাই নুর মোহাম্মদকে জানালে তিনি আমার স্ত্রীকে তার ভাইয়ের কাছ থেকে উদ্ধার করে স্বর্ণালংকার ও টাকাসহ ফেরত দেওয়ার আশ্বাস দিয়ে থানায় অভিযোগ করতে নিষেধ করেন। তবে এরপরে তালবাহানা শুরু করেন তিনি। এ ঘটনার বিষয়ে রুবেল ইসলাম জয়ের বক্তব্য জানতে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তার মোবাইল নম্বর বন্ধ পাওয়া যায়। মুন্সিগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ফয়সাল মৃধা জানান, এ বিষয়ে আমার জেলা সাধারণ সম্পাদক ভালো বলতে পারবেন। জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়েজ আহমেদ পাভেল বলেন, রুবেল সহসম্পাদক পদে রয়েছেন। তবে ছাত্রলীগের সঙ্গে প্রায় ৪ বছর ধরে তার কোনো সম্পৃক্ততা নেই। শ্রীনগর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আমিনুল ইসলাম বলেন, পলাতক নারীর স্বামীর অভিযোগ পেয়েছি। আমরা ওই নারীকে উদ্ধারের চেষ্টা করছি। যেহেতু পালিয়ে যাওয়া নারী অন্যের স্ত্রী এবং তার দুটি বাচ্চা রয়েছে। এ কারণে তাকে উদ্ধার করার চেষ্টা চলছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *