পরীমনি-পিয়াসা- মৌদের বাসায় যাতায়াতকারীদের তালিকা নিয়ে যা জানালো ডিএমপি

ঢাকাই ছবির নায়িকা পরীমনি, মডেল ফারিয়া মাহবুব পিয়াসা ও মরিয়ম আক্তার মৌর বাসায় যাতা’য়াত ছিল এমন ব্যবসায়ী বা ব্যক্তিদের কোনো তালিকা করা হচ্ছে না।

পাশা’পাশি তাদের সঙ্গে থা’কা ছবি ও ভিডিও ছড়িয়ে দে’ওয়ার ভয় দেখিয়ে একটি গ্রুপ চাঁদাবাজি করছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার (ডিএমপি) শফি’কুল ইসলাম।

সোমবার দুপুরে ডিএমপি কমিশনার রাজ’ধানীতে তার কার্যালয়ে কয়েকটি দৈনিক পত্রিকার সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়ের সময় এ কথা জানান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ডিএমপির অতি’রিক্ত কমিশনার (অপরাধ ও অভিযান) কৃষ্ণপদ রায় ও ডিএমপির গণমাধ্যম ও জনসংযোগ বিভাগের উপক’মিশনার ফারুক হোসেন।

ডিএমপির কমিশনার বলেন, পরীমনি, ফারিয়া মাহবুব ও মরিয়মের সঙ্গে বি’ভিন্ন ব্যক্তির ছবি বা ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে একটি গ্রুপ চাঁদা’বাজি করছে বলে তথ্য পেয়েছে পুলিশ।

তাদের কবল থে’কে রক্ষা পেতে দুই-তিনজন ব্যবসায়ী ইতিমধ্যে স্বরাষ্ট্র’মন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। ভুক্ত’ভোগীরা এসব চাঁদাবা’জদের বিষ’য়ে তথ্য দিলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যব’স্থা নেবে পুলিশ।

তিনি চাঁদাবাজদের কল রেকর্ড করতে ভুক্তভোগীদের পরা’মর্শ দেন। এসব কল রেকর্ড পরে পুলি’শের কাছে জমা দিতে বলে’ন। পাশাপাশি এই চাঁ’দাবাজদের বিষয়ে স্থানীয় থানা বা ডিএমপিকে তথ্য জানাতে অনুরোধ করেন।

শফিকুল ইসলাম বলেন, এখন পর্যন্ত তি’নজন ব্যবসায়ী এমন চাঁদা’বাজদের হাত থেকে রক্ষা পেতে ডিএমপির সঙ্গে যোগা’যোগ করেছেন। লোকলজ্জার ভয়ে গুলশানের আতঙ্কিত একজন ব্যবসায়ী ডিএমপির কমিশনা’রের সহযোগিতা কামনা করেছেন। ডিএমপি কমিশনার বলেন, কারও সঙ্গে সম্পর্ক থাকা তো বেআ’ইনি নয়। যতক্ষণ না পর্যন্ত এ বিষ’য়ে মামলা না হয়।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *