ভার্জিন বলে বিয়ে, স্বামীকে ঠকানোর দায়ে যে শাস্তি হলো নারীর

কুমারী পরিচয়ে বিয়ে করে প্রতারণার অভিযোগে করা মামলায় শাহরীন ইসলাম নীলা (২৪) নামে এক নারীকে এক বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

একই সঙ্গে ১০ হাজার টাকার অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরো তিন মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। রায়ে আদালত মামলার অপর দুই আসামি নীলার মা রাজিয়া বেগম ও বাবা শাহআলমকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়েছে।

রোববার দুপুরে ঢাকার প্রথম অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম আবু বকর সিদ্দিকের আদালত আসামির অনুপস্থিততে এ রায় ঘোষণা করেন। ২০১৬ সালের ১৬ জুন ঢাকার খুলনা জেলার রূপসা থানা নৈহাটি গ্রামের আবুল খায়েরের ছেলে

ইমরান শেখ মুখ্য মহানগর হাকিম (সিএমএম) আদালতে এ মামলা করেন। মামলাটি আদালত সরাসরি আমলে নিয়ে আসামিদের বিরুদ্ধে সমন জারি করেন। পরবর্তী সময়ে আসামিরা আদালতে হাজির হয়ে জামিন গ্রহণ করেন।

মা’মলায় বলা হয়, আসামি নীলা নিজেকে কুমারী পরিচয়ে ২০১৪ সালের ৩ জুলাই বাদীর সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবন্ধ হন। বিবাহের পর বাদী জানতে পারেন, আসামির পূর্বে আরো একাধিক বিয়ে করেছেন।

তিনি নিজেকে প্রতারণামূলকভাবে কুমারী পরিচয় দিয়েছেন। কুমারী পরিচয়ে একাধিক বিবাহ করে পরবর্তী সময়ে তালাক প্রদান করে দেনমোহরের টাকা আদায় করেছেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *