ভূয়া ভিডিও বানিয়ে প্রবাসীদের অপমান (ভিডিও সহ)

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ভিডিও ব্যাপক ভাইরাল হয়েছে! ভাইরাল হওয়া ভিডিও’র কেঁপশনে লেখা ছিল “প্রবাসীর স্ত্রী পরকিয়া প্রেম করতে গিয়ে দরা!!!স্বামীর সব সম্পত্তি ভোগ করে স্বামীকে অস্বীকার।”

ভাইরাল হওয়া ভিডিওটি গত ১৭ অক্টোবর Pother Pothik নামে একটি ফেসবুক পেজ থেকে আপলোড করা হয়! ভিডিওটিতে দেখা যায়, একটি ছেলে এবং মেয়ে রাস্তার মাঝে ঝগড়া করছে কিছুটা উত্তেজিত অবস্থায়!

মূলত ৮ বছর পর প্রবাস থেকে দেশে ফিরে স্ত্রীকে পরকিয়ার সময় হাতে নাতে ধরে! এ সময় প্রবাসী স্বামী বলেন, বিয়ে করে আমি প্রবাসে গিয়ে মোবাইল দিছি, স্বর্ণের চেন দিছি, তাকে বাড়ি করে দিছি! এখন আমাকে ধরতে দেওনা কেন?

এমন সময় প্রবাসীর স্ত্রী বলেন, ৮ বছর বিদেশে ছিল আমি এখানে একা একা থাকবো নাকি? নিজে ৮ বছর বাহিরে থাকবে আর আমি এখানে ফাও বসে থাকমু! ভাইরাল এই ভিডিওটির সূত্র ধরে অনেক অনলাইন পত্রিকা প্রতিবেদন তৈরী করেছে!

ভিডিওটি দেখে কেউ বুঝতে বা ভাবতে পারেনি এই ঘটনাটি বাস্তব নয়, শুধূ মাত্র অভিনয়! তবে গত ৩০ অক্টোবর আবারও Pother Pothik নামে ফেসবুক পেজ থেকে “ডিবোর্সের কাগজে সই না দেওয়ায় প্রবাসীর উপরে নির্মম অবিচার!!!সর্বহারা প্রবাসীকে রাস্তায় ডেকে এনে জোর করে তালাক-নামায় সই করানোর চেষ্টা।” ক্যাপশনে আপলোড করা ভিডিওতে সেই ছেলে এবং মেয়ে সাথে কাহিনী দেখে নেটিজেন’রা পরিষ্কার ভাবে বুঝতে পেরেছে ঘটনাটি সম্পূর্ণ বানোয়াট এবং কাল্পনিক!

সম্পূর্ণ ভিডিওতে বিভিন্ন ভাবে প্রবাসীদের অপমাণ করা হয়েছে! বেশ কিছু সংলাপেও প্রবাসীদের অপমান করতে দেখা গেছে ভিডিওতে! ভিডিওর বিভিন্ন অংশে ভিডিওটিতে থাকা মেয়েটি প্রবাসীদের “গুষ্টি খিলাই” সহ নিয়ে নানা ধরনের গালাগালি করেছে! “তুমি ৮ বছর বিদেশে ছিল আমি এখানে একা একা থাকবো নাকি, ফাও বসে থাকবো আমি” প্রবাসীর স্ত্রীর ভূমিকায় অভিনয় করা মেয়েটির এমন সংলাপের মাধ্যমে অপমান করা হয়েছে সমস্ত প্রবাসীর স্ত্রীদের!

মূলত প্রবাসীদের আবেক দিয়ে খেলা করেছে এরা এবং প্রবাসীদের বেশি ভিউ পাওয়ার জন্য বিভিন্ন ধরণের অভিনয় সাজিয়ে ভিডিও তৈরি করছে! অনেকে এই সব ঘটনা বিশ্বাসও করছে এবং নিউজও করা হয়েছে বিভিন্ন অনলাইন মিডিয়াতে! ভাইরাল হওয়া প্রথম ভিডিওতে ২ কোটি ভিউ এবং ১ লাখ ৯৬ হাজার রিয়াক্ট পড়েছে এবং দ্বিতীয় ভিডিওতে ৪০ লাখ ভিউ এবং ৬০ হাজার রিয়েক্ট পরেছে!

এদিকে ভাইরাল হওয়া ভিডিওটি ভূয়া প্রমাণিত হওয়ার পর থেকেই এর বিরুদ্ধে বিভিন্ন প্রতিক্রিয়া জানাচ্ছে প্রবাসী থেকে শুরু করে দেশের নেটিজেন’রা! অনেকে এই ভিডিও যে তৈরী করেছে তার শাস্তির দাবি করেছে! তবে ভিডিওটি যে তৈরী করেছে তার পরিচয় এবং কোন জায়গায় তৈরি করা হয়েছে ভিডিওটি তা জানা যায় নি, কিন্তু দ্বিতীয় ভিডিওতে থাকা সিএনজির পিছনে নাম্বার প্লেটে লেখা “কুমিল্লা-থ ১২৩৬৫৮” নাম্বার থেকে পরিচয় পাওয়া সম্ভব বলে মনে করছেন অনেকে!

এদিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট এবং কমেন্টের মাধ্যমে অনেকে বলেছেন, বাংলাদেশের উন্নতি ও অগ্রগতির প্রধান সোপান রেমিট্যান্স। দেশের বাইরে গতর খেটে লাল-সবুজের পতাকা সমৃদ্ধি বৃদ্ধির জোগান দিয়ে আসছেন প্রবাসী শ্রমিকেরা। প্রবাসীদের কষ্টার্জিত রেমিট্যান্সে গড়ে ওঠা স্তম্ভে মজবুত হয়েছে বাংলাদেশের অর্থনীতির ভিত আর সেই রেমিটেন্স যোদ্ধাদের অপমাণ কোন ভাবেই মেনে নেওয়া হবে না! প্রবাসীসহ অনেকে দাবি জানিয়েছে, অতি দ্রুত যেন যে ব্যক্তি ওই ভিডিওটি তৈরী করেছে এবং অভিনয় করেছে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হয় এবং এমন শাস্তি দেওয়া হয় যেন কেউ আর এভাবে প্রবাসীদের অপমাণ করার সাহস না পায়!
ভাইরাল ভিডিও দেখতে ক্লিক করুন

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *