আবারও নতুন সমাবেশ কর্মসূচিতে বিএনপি

আবারও নতুন সমাবেশ কর্মসূচিতে বিএনপি

মার্চের দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকে স্থগিত রাখা বিভাগীয় শহর ও জেলা সমাবেশের মধ্যদিয়ে আবারও কর্মসূচিতে রাজপথে নামতে যাচ্ছে বিএনপি। ২২ মার্চ রাতে দলটির স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়।

স্থায়ী কমিটির দুই সদস্য গণমাধ্যমকে এ সিদ্ধান্তের কথা জানান। এ বিষয়ে দ্রুত সংবাদ সম্মেলন করে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিবেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও উন্নত চিকিৎসায় বিদেশে

পাঠানোর দাবিতে বিভাগীয় শহর ও জেলা পর্যায়ে চলমান সমাবেশ কর্মসূচি হঠাৎ করে আবারও করোনাভাইরাস সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় সরকারের দেওয়া নির্দেশনা মেনে বিএনপি স্থগিত করেছিল। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান গণমাধ্যমকে বলেন,

আমাদের প্রোগ্রামটা চলমান আছে। আমরা শুধু বলেছি করোনার কারণে সমাবেশের তারিখ পুনঃনির্ধারণ করব। এখন করোনা পরিস্থিতির উপর নির্ভর করছে।

তবে যখন করব তখন জানতে পারেবেন। খালেদা জিয়া মুক্তি, বিদেশে উন্নত চিকিৎসা ও সংগঠনকে গতিশীল করতে জেলায় জেলায় সমাবেশ করার সিদ্ধান্ত নেয় বিএনপি।

প্রথম ধাপে ৩২টি জেলায় সমাবেশ করার ঘোষণা দেয় রাজপথের প্রধান বিরোধী দল। গত বছরের ২২ ডিসেম্বর থেকে ৩০ ডিসেম্বর এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। দলের মহাসচিবসহ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ এসব সমাবেশ উপস্থিত থাকেন। প্রথম ধাপে ৩২টি জেলায় সমাবেশ হওয়ার কথা থাকলেও সব জেলায় সমাবেশ করা সম্ভব হয়নি।

৪৪ ধারা জারি হওয়ায় কয়েকটি জেলার সমাবেশ পণ্ড হয়ে যায়। দ্বিতীয় ধাপে বাকি জেলাগুলোতে সমাবেশের ঘোষণা দেয় বিএনপি। সমাবেশের তারিখ পুনঃনির্ধারণের ঘোষণা দেয় বিএনপি। ১৪ জানুয়ারি সংবাদ সম্মেলন করে এ ঘোষণা দেন বিএনপির স্থায়ী বিএনপি সদস্য নজরুল ইসলাম খান। তিনি বলেন,

জনস্বার্থ ও প্রাসঙ্গিক সবকিছু বিবেচনা করে আমাদের এই সমাবেশগুলোর তারিখ পুনঃনির্ধারণ করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। ৫ জানুয়ারি সমাবেশের ঘোষণা দেন দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। জানুয়ারির ১২, ১৫, ১৭, ১৯ ও ২২ তারিখে এসব সমাবেশের দিন নির্ধারন করা হয়। গত ১৩ জানুয়ারি করোনার নতুন ধরন অমিক্রন বিস্তার লাভ করায় সরকার ১১টি নির্দেশনা দিয়ে ধর্মীয়, সামাজিক ও রাজনৈতিক সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ করেছিল।


Leave a Reply

Your email address will not be published.