আইভীকে শামীম ওসমানের পাল্টা চ্যালেঞ্জ


রাজনীতি: নারায়ণগঞ্জে সম্প্রতি আলোচনায় আওয়ামী লীগের এমপি শামীম ওসমানের ‘জাহাজ’। নির্বাচনের হলফনামায় শামীম ওসমান ব্যবসায় নিজেকে শিপিং ব্যবসায় সম্পৃক্ততার বিষয়টি উল্লেখ করেছেন।

তবে সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীর বক্তব্যের পর বিষয়টি আলোচনায় আসে। তবে ১৩ মার্চ শহরের চাষাঢ়ায় রাইফেল ক্লাবে ও ফতুল্লার ইউনাইটেড ক্লাবে পৃথক কর্মী সভায়

শামীম ওসমান নিজের ওই জাহাজ নিয়ে কথা বলেন। এতে শামীম ওসমান বলেন, অনেকে অনেক কথা বলছেন। আমার নাকি ১৭ টা জাহাজ আছে। দেন না দু চারটা, আমার জন্য ভাল। সাংবাদিকদের ডাকেন

আমি আমার সম্পদের ফাইল দিব আপনি আপনারটা দেন। যদি কোন দুর্নীতি দেখাতে পারেন রাজনীতি ছেড়ে দিয়ে নারায়ণগঞ্জ থেকে চলে যাবো। এর আগে ৭ মাচ) নারায়ণগঞ্জের শেখ রাসেল পার্কে তানভীর মুহাম্মদ ত্বকী হত্যার

নবম বার্ষিকীতে শিশু সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন আইভী। সেদিন আইভী বলেন, এই শহরের সবচেয়ে বড় বিখ্যাত ফ্যামিলি (পরিবার) যারা কথায় কথায় বলে তাদের মত ধনী সম্প্রদায় নারায়ণগঞ্জ শহরে নাকি নাই।

তো ধনী হলো কোত্থেকে? যিনি তোলারাম কলেজে টাকার জন্য ফরম ফিলাম করতে পারে নাই বক্তব্যে বার বার তিনি বলেন। অথচ আজকে উনি কোটি কোটি টাকার মালিক। আবার অন্যের দিকে চোখ তোলে বাড়ি করলো কিভাবে?

বাবার জায়গা বিক্রি করে বাড়ি করেছি। আপনার মত চুরি করে নয়, দুর্নীতি করে নয়। আপনারা অনেকেই জানেন না, উনার কার্গো আছে প্রায় ১৬ থেকে ১৭টা। এসব কার্গো শিপের মালিক উনি রাতারাতি কিভাবে হলেন? কিভাবে কোটি কোটি টাকার মালিক হয়ে গেলেন। সেই তথ্য নারায়ণগঞ্জবাসী জানতে চায়।

আইভী আরো বলেন, ‘দুদকের ভয় দেখান অনেকের ইনকাম ট্যাক্সের ফাইল নিয়ে নাড়াচাড়া করেন। যারা আমার নির্বাচন করেছে তার ইনকাম ট্যাক্সের ফাইল রাজাকার পুত্র কাজলের মাধ্যমে রাইফের ক্লাবে বসে থেকে আপনি কলকাঠি নাড়ছেন। আপনার দিন অনেক ছোট হয়ে এসেছে। আপনি নিজেও বুঝতে পারেন, আপনার পায়ের তলার মাটি নাই তাও জানেন। এখন আপনি কিভাবে মানুষকে বিপদে ফেলবেন এই চিন্তায় সর্বদা থাকেন। আপনি ছাত্রসমাজকে ক্ষেপাতে চাচ্ছেন। তোলারাম কজেলের ছাত্রদের বলেছেন, জিয়াউর রহমানের গাড়ি আটকে দিয়েছেন। আপনি তো অত্যন্ত ভীতু মানুষ। আপনি তো যখন-তখন দেশ ছেড়ে চলে যান। যখনই সমস্যা হয় তখনি চলে যান ইন্ডিয়া, কানাডা অথবা দুবাই। শত শত কোটি টাকা পাচার করে দিয়েছেন দুবাই-মালয়েশিয়ায়, বাড়ি-ঘর করেছেন সব জায়গায়। আবারো চলে যাবেন। আপনি কেন ছাত্র সমাজকে মিথ্যা কথা বলে ক্ষেপাতে চাচ্ছেন। মার্চ মাস আসলেই দেখি আপনাদের ফ্যামিলির লোকজনের ট্র্যাডিশন হয়ে গেছে কোন না কোন ঘটনায় নারায়ণগঞ্জের মানুষকে ভয় দেখানো অথবা মিথ্যা বলা।

সুত্রঃ দ্যা নিউজ নারায়ণগঞ্জ ডটকম


Leave a Reply

Your email address will not be published.