বিয়েতে অসম্মতি, প্রেমিক-প্রেমিকার ভয়ঙ্কর কাণ্ড

বিয়েতে অসম্মতি, প্রেমিক-প্রেমিকার ভয়ঙ্কর কাণ্ড

মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জ উপজেলায় বিষপান করে প্রেমিক প্রেমিকা দুজনই আত্মহত্যা করেছে।

আত্মহত্যাকারী দুজন হলেন সীমান্তবর্তী মাধবপুর ইউনিয়নের দলই চা বাগানের লছমী লাইনের হারো সাওতালের ছেলে চা শ্রমিক

বিপুল সাওতাল (২২) ও একই বাগানের নতুন লাইনের কৃষ্ণ মাদ্রাজীর মেয়ে গীতা মাদ্রাজীর (১৬)। শনিবার (২ এপ্রিল) সকালে এ ঘটনাটি ঘটে।

এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। নিহতের স্বজন ও এলাকাবাসীর সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বছর খানেক আগে থেকে দলই চা বাগানের লছমী

লাইনে বিপুল সাওতাল একই বাগানের নতুন লাইনের গীতা মাদ্রাজীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। একপর্যায়ে গীতা অন্ত:স্বত্তা হয়ে পড়লে গীতা প্রেমিক

বিপুলকে ঘরে তোলার চাপ দেয়। প্রায় এক মাস পূর্বে গীতাকে নিজ ঘরে তুলে বিপুল। কিন্তু তাদের এই বিষয়টি বিপুলের পরিবার মেনে নিতে অসম্মতি জানালে

ক্ষোভ ও অভিমান করে শনিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে বাড়ির সবার অজান্তে বিষপান করে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন তারা। পরিবারের লোকজন বিষয়টি জানতে পেরে

দ্রুত তাদের উদ্ধার করে প্রথমে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে শনিবার দুপুরে গীতা মাদ্রাাজী মারা যায়। পরে সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে

নেয়ার পথে বিপুল সাওতাল এর মৃত্যু হয়। দলই চা বাগান পঞ্চায়েত সম্পাদক সেতু রায় ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তবে কি কারণে তারা আত্মহত্যার পথ বেছে নিল তা বলতে পারব না। মাধবপুর ইউনিয়নের স্থানীয় ইউপি সদস্য শিবনারায়ণ শীল বলেন, মেয়েটি অন্ত:স্বত্তা ছিল। প্রায় এক মাস ধরে মেয়েটি ছেলের বাড়িতেই অবস্থান করছে।

কমলগঞ্জ থানার ডিউটি অফিসার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) ইশতিয়াক আহমদ জানান, মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালেই দুজনের ময়নাতদন্ত হবে। এ ঘটনায় থানায় অপমৃত্যু মামলা রেকর্ড হবে। প্রেমিক ও প্রেমিকার লাশ নিজ নিজ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।


Leave a Reply

Your email address will not be published.