আমি যা হারিয়েছি সেটা বোঝার ক্ষমতা কারও নেই

আমি যা হারিয়েছি সেটা বোঝার ক্ষমতা কারও নেই

গত ১৯ মার্চ বাবা হারিয়েছেন সংগীতশিল্পী ফাতিমা তুয যাহরা ঐশী। তার সাফল্যের পেছনে বাবার অবদান অনেক বেশি। সব পরিস্থিতিতে মেয়েকে সাপোর্ট দিতেন বাবা।

আর তাই বাবার মৃত্যুর শোকে নিজেকে সবকিছু থেকে দূরে রাখেন ঐশী। সোমবার (৪ এপ্রিল) দুপুরে সোশ্যাল মিডিয়ায় বাবার সঙ্গে তোলা একটি ছবি পোস্ট করেছেন ঐশী। ক্যাপশনের শুরুতেই লেখেন,

আসসালামু আলাইকুম, জীবন থেমে থাকে না। দ্য শো মাস্ট গো অন (অবশ্যই চলতে থাকবে)। বিভিন্ন মাধ্যমে আমাকে অনেকেই বার্তা পাঠিয়েছেন। সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা। আমার বাবার জন্য দোয়া করবেন সবাই। আল্লাহ যেন তাকে জান্নাতুল ফেরদাউস নসীব করেন। আমিন।’

ঐশী আরও লিখেছেন, ‘আব্বু সব সময় কাজকে এক নম্বর গুরুত্ব দিতেন। জীবনের সব কিছু একদিকে আর কাজ একদিকে। আমিও এটাই শিখেছি আব্বুর কাছে। আব্বুর আদর্শকে সঙ্গে রেখেই আমি কখনো কাজকে না করি না এবং করব না। আমি কাজ করব কি করবো না

এই ভেবে কেউ বিভ্রান্ত হবেন না। কাজ আমার কাছে সবার আগে৷ কাজের মাঝে থাকব এবং চেষ্টা করব আব্বুর আমাকে নিয়ে দেখা সব স্বপ্ন পূরণ করতে।’ খুব শিগগিরই কাজ শুরু করবেন জানিয়ে তিনি লেখেন, ‘ঈদের পর থেকে নিয়মিত স্টেজ শো-সহ অন্যান্য সকল কাজে সচল থাকব, ইনশাআল্লাহ।

দোয়া করবেন, আমি যেন আমার আব্বুর সব স্বপ্ন পূরণ করতে পারি। আমি এবং আমার পরিবার যে কি হারিয়েছি সেটা বোঝার ক্ষমতা কারও নেই। তারপরও এই সময়ে কিছু মানুষকে অনেক আপন করে পাশে পেয়েছি, যাদের প্রতি আমি চিরকাল কৃতজ্ঞ থাকব। আমার এবং আমার পরিবারের জন্য দোয়া করবেন সবাই।’

ঐশী তার পোস্টে যেই ছবিটি যুক্ত করেছেন সেখানে দেখা যাচ্ছে, তার বাবা হসপিটালের বেডে শুয়ে আছেন। পাশেই চিকিৎসকের পোশাকে দাঁড়িয়ে আছেন ঐশী। ছবিটি প্রসঙ্গে গায়িকার ভাষ্য, ‘এই ছবিটা তোলার সময় আব্বু বলছিলেন- ‘মেয়ে যখন ডাক্তার, বাবা তখন রোগী’ এটা লিখে একটা স্ট্যাটাস দিতে।’


Leave a Reply

Your email address will not be published.