কপালে টিপ দিয়ে পুরুষের প্রতিবাদ, নেটমাধ্যমে সমালোচনার ঝড়

কপালে টিপ দিয়ে পুরুষের প্রতিবাদ, নেটমাধ্যমে সমালোচনার ঝড়

দেশজুড়ে: গত শনিবার (২ এপ্রিল) কর্মস্থলে যাওয়ার পথে হয়রানির শিকার হয়েছেন তেজগাঁও কলেজের এক প্রভাষক।

এ ঘটনায় শেরে বাংলা নগর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন তিনি। ওই কলেজ শিক্ষিকার অভিযোগ- রাজধানীর গ্রিন রোডের

বাসা থেকে হেঁটে কলেজে যাওয়ার সময় হুট করে পাশ থেকে মধ্যবয়সী, লম্বা দাড়িওয়ালা একজন ‘টিপ পরছোস কেন’ বলেই বাজে গালি দেন তাকে।

সেই ব্যক্তির পরনে ছিলো পুলিশের পোশাক। প্রতিবাদ জানালে একপর্যায়ে তার পায়ের ওপর দিয়ে বাইক চালিয়ে চলে যান অভিযুক্ত ওই ব্যক্তি।

এ ঘটনায় উত্তাল সোশ্যাল মিডিয়া। নারী-পুরুষ নির্বিশেষে কপালে টিপ লাগানো ছবি পোস্ট করে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন। বিশেষ করে শিল্পীদের প্রতিবাদের চিত্র ‘টিপকাণ্ডে’

ঝড় তুলেছে। সম্মিলিত ও স্বেচ্ছাপ্রণোদিত এমন প্রতিক্রিয়া শেষ কবে এসেছে, সেটি নিশ্চিত করে বলা মুশকিল। তবে তারকারা এই প্রতিবাদে উদ্বুদ্ধ হয়েছেন কিংবদন্তি

অভিনেত্রী ও সংসদ সদস্য সুবর্ণা মুস্তাফার কণ্ঠস্বরে। তিনি জাতীয় সংসদ ভবনে দাঁড়িয়ে প্রশ্ন তুলেছেন, ‘দেশের কোন আইনে আছে টিপ পরা যাবে না?’

অভিনেতা সাজু খাদেম টিপ পরা ছবি পোস্ট করে লিখেছেন, ‘লাল টিপ…লাল সূর্য…।’ আনিসুর রহমান মিলনের টিপ পড়া ছবিতে লেখা, ‘আমি কপালে টিপ পড়বো। তুই বেজন্মার তাতে কি?’

অবসকিওর ব্যান্ড নেতা টিপু বলেন, ‘টিপ, ভালোবাসার চিহ্ন।’ দেশের অন্যতম বাচিক শিল্পী নাজমুল হুসাইন বলেন, ‘বহুদিন ধরে চেষ্টা করছিলাম, দোজখ দেখার এবং সামান্য অভিজ্ঞতার; কিন্তু কোনোভাবে দোজখের সন্ধান পাচ্ছিলাম না। এবার মনে হয় পাব। টিপ পরলাম, দোজখ ঘুরে আসার জন্য। ফিরে এসে আপনাদের জানাবো আমার অভিজ্ঞতা। দোজখে যাওয়ার আশীর্বাদ চাই।’

অভিনেতা-প্রযোজক স্বাধীন খসরু লেখেনে, ‘সংহতি টিপ।’ অভিনেতা মনোজ প্রামাণিকের সঙ্গে টিপ পরে তোলা ছবি দিয়ে তরুণ প্রজন্মের অভিনেতা আরোশ খান লিখেছেন, ‘একা একা কিছু করে মজা নাই। চলো আমিও আছি সাথে মনোজ দাদা।’

নির্মাতা ও সংগীতশিল্পী মাসুদ হাসান উজ্জ্বল ছবি ছাড়াই প্রতিবাদ করেন। তার ভাষ্য, ‘যেকোনো ঘটনা নিয়ে অতি চর্চা করতে গিয়ে লেজে-গোবরে করা আমাদের মজ্জাগত সমস্যা। টিপকাণ্ডে জড়িত পুলিশ সদস্য কোনোভাবেই সুস্থ মানসিকতার হতে পারে না! পুলিশের উচিত বাহিনী থেকে এই অসুস্থ পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া, এটা পুলিশের ইমেজের জন্যই জরুরি।’

এ ছাড়াও ক্যাপশন ছাড়া কপালে টিপ পরা ছবি প্রকাশ করে এই প্রতিবাদে সংহতি জানিয়েছেন অভিনেতা প্রাণ রায়, মনোজ প্রামাণিক, ফ্যাশন ডিজাইনার বিপ্লব সাহা। এই প্রতিবাদে অভিনেত্রীদের তালিকায় আছেন ঊর্মিলা শ্রাবন্তী কর, আশনা হাবিব ভাবনা, জ্যোতিকা জ্যোতি, সানারেই দেবী শানু, নাজনীন হাসান চুমকী, সুষমা সরকার, ফারজানা চুমকী, কুসুম শিকদার ও জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেত্রী দীপান্বিতা মার্টিন। এছাড়াও নির্মাতা চয়নিকা চৌধুরী, আয়েশা মনিকা, চিত্রনায়িকা অধরা খান, সঞ্চালক ত্রয়ী ইসলাম ও কণ্ঠশিল্পী মিতু কর্মকার প্রমুখ আছেন তালিকায়।

তবে পুরুষদের কপালে টিপ দেওয়া নিয়ে তৈরি হয়েছে নতুন বিতর্ক। কেউ কেউ বিষয়টিকে সাধুবাদ জানালেও অনেকেই এটিকে ভালো চোখে দেখছেন না। তাদের মতে, প্রতিবাদ করুক তাতে সমস্যা নেই কিন্তু কপালে টিপ দিয়েই কেন প্রতিবাদ করতে হবে? আবার কেউবা কটাক্ষের সুরে বলছেন- আজ কপালে টিপ পরে প্রতিবাদ করে সবকিছু উল্টায় ফেলছেন, কিছুদিন পর হয়তো শুনবো আপনারাও মা হতে চলেছেন।


Leave a Reply

Your email address will not be published.