টিপকাণ্ডে পোস্ট দিয়ে ক্লোজড সেই পুলিশের দুঃখপ্রকাশ

টিপকাণ্ডে পোস্ট দিয়ে ক্লোজড সেই পুলিশের দুঃখপ্রকাশ

টিপকাণ্ডে ফেসবুকে বিতর্কিত পোস্ট দিয়ে ক্লোজড হওয়া সিলেট জেলা পুলিশের আদালত পরিদর্শক লিয়াকত আলীর বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু হয়েছে।

পাশাপাশি স্পর্শকাতর বিষয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তার বিতর্কিত মন্তব্য করার বিষয়টি পুলিশ সদর দপ্তরকে জানিয়েছে সিলেট জেলা পুলিশ।

এদিকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পরিদর্শক লিয়াকত কৃতকর্মের জন্য তদন্ত কমিটির কাছে দুঃখপ্রকাশ করেছেন। মঙ্গলবার (৫ এপ্রিল) সকালে পুলিশ লাইনসে

সংযুক্ত পরিদর্শক লিয়াকত আলীকে জিজ্ঞাসাবাদ করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি। সিলেট জেলা পুলিশের গণমাধ্যম কর্মকর্তা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি)

মো. লুৎফুর রহমানের নেতৃত্বে গঠিত তদন্ত কমিটিতে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শেখ মুক্তাজুল ইসলাম ও পরিদর্শক আসাবুর রহমান সদস্য হিসেবে রয়েছেন।

গতকাল সোমবার রাতে টিপকাণ্ডে লিয়াকতের বিতর্কিত পোস্ট নজরে আসার পরপরই তাকে ক্লোজ করেন সিলেটের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন। পাশাপাশি

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার লুৎফুর রহমানের নেতৃত্বে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেন। এই কমিটিকে তিন দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়। তদন্ত কমিটি

মঙ্গলবার থেকে কাজ শুরু করেছে। সিলেটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার লুৎফুর রহমান বলেন, লিয়াকত আলী কৃতকর্মের জন্য দুঃখপ্রকাশ করেছেন। বুঝে হোক বা না বুঝে হোক,

তিনি বড় ঘটনা ঘটিয়েছেন। তাই পুলিশ সুপার অবহিত হওয়ার পরপর ব্যবস্থা নিয়েছেন, সদর দপ্তরকেও বিষয়টি জানানো হয়েছে। এখন তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এক্ষেত্রে বিভাগীয় মামলাও হতে পারে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

গত শনিবার ঢাকায় কর্মস্থলে যাওয়ার পথে এক নারীর টিপ পরা নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করেন পুলিশ কনস্টেবল নাজমুল তারেক। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপক সমালোচনা শুরু হয়। এমনকি সংসদের আলোচনায়ও বিষয়টি স্থান পায়। অনেকে আবার ফেসবুকে টিপ পরা ছবি ও লেখার মাধ্যমে ওই পুলিশ সদস্যের বিতর্কিত কর্মকাণ্ডের তীব্র প্রতিবাদ ও সমালোচনা করেন।

এ পরিস্থিতির মধ্যে সোমবার দুপুরে ফেসবুকে দেওয়া এক স্ট্যাটাসে টিপকাণ্ডের প্রতিবাদকারীদের বিদ্রুপ করেন সিলেটে কর্মরত পুলিশ কর্মকর্তা লিয়াকত আলী। এ সময় তিনি নারীর পোশাক নিয়েও মন্তব্য করেন। এ নিয়ে আবার আলোচনা-সমালোচনা শুরু হলে সোমবার সন্ধ্যার পর তিনি পোস্টটি ডিলিট করে দেন। যদিও অনেকেই পোস্টটির স্ক্রিনশট নিয়ে রাখেন এবং এটি ছড়িয়ে পড়ে। অনেকে সেই স্ক্রিনশট দিয়ে ফেসবুকেই প্রতিবাদ জানাতে থাকেন।


Leave a Reply

Your email address will not be published.