সিলেটে দুই এলাকাবাসীর সংঘর্ষ, সাবেক মেয়র কামরানের বাসায় হামলা

সিলেটে দুই এলাকাবাসীর সংঘর্ষ, সাবেক মেয়র কামরানের বাসায় হামলা

কথা-কাটাকাটির জেরে সিলেট নগরের ছড়ারপার ও মাছিপুরবাসীর মধ্যে সংঘর্ষে পুলিশসহ অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে পুলিশের এক এএসআইসহ ১২ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।

আহতদের সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়া সংঘর্ষ চলাকালে হামলা চালিয়ে ছড়ারপাড় এলাকায় সিলেট সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র প্রয়াত বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের বাসা ও গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে।

বুধবার (৬ এপ্রিল) রাত ৮টার দিকে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে রাত পৌনে ৯টায় পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে ফাঁকা গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে এ ঘটনায় কাউকে আটক করা হয়নি।

রাত ১১টার দিকে সিলেট মহানগর পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার (উত্তর) আজবাহার আলী শেখ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, দুদিন আগে ড্রেনের কাজ নিয়ে মাছিমপুর এলাকার জনৈক হান্নান মেম্বারের ছেলের সঙ্গে ছড়ারপারের কয়েকজনের কথা-কাটাকাটি হয়।

সেটি এক পর্যায়ে ঝগড়ায় রূপ নেয়। তারই জেরে আজ বুধবার রাত ৮টার দিকে উভয় পাড়ার লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এই পুলিশ কর্মকর্তা আরও বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে ফাঁকা গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। সংঘর্ষ চলাকালে দুইপক্ষের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে বলে শুনেছি। বিষয়টি তদন্ত করে দেখছি। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সংঘর্ষ চলাকালে বৃষ্টির মতো গুলিবর্ষণের ঘটনা ঘটে। এছাড়া সিলেটের সাবেক মেয়র মরহুম বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের বাসায় ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও ভাঙচুর করা হয়েছে।

ছড়ারপাড়ের বাসিন্দা কালাম আহমদ জানান, মঙ্গলবার মোটরসাইকেল চালানো নিয়ে ছড়ারপাড় ও মাছিমপুরের দুই যুবকের মধ্যে কথা-কাটাকাটি হয়। পরে স্থানীয়ভাবে বিষয়টি মীমাংসা করে দেওয়া হয়। এর জেরে বুধবার রাত পৌনে ৮টার দিকে মাছিমপুরের একদল সন্ত্রাসী ছড়ারপাড়ে এসে হামলা চালায়। এসময় তারা সাবেক মেয়র বদরউদ্দিন আহমদ কামরানের বাসায় ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে বাসার জানালা ও সামনে রাখা গাড়ি ভাঙচুর করে। এছাড়া মাছিমপুরের লোকজনের নিক্ষেপ করা ইটপাটকেলে ছড়ারপাড়ের কয়েকজন গুরুতর আহত হন।

তবে স্থানীয় একটি সূত্র জানিয়েছে, সড়কের জায়গা নিয়ে কয়েকদিন ধরে ছড়ারপাড় ও মাছিমপুরের লোকজনের মধ্যে উত্তেজনা চলছিল। এ নিয়ে মঙ্গলবার ১৪ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম মুনিম ও ২৩ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোস্তাক আহমদের উপস্থিতিতে বৈঠক হয়। কিন্তু বৈঠকে কোনো সমাধান হয়নি।

এর জের ধরে বুধবার উভয় পাড়ার লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। মাছিমপুরের একদল লোক ছড়ারপাড়ে এসে সিলেট সিটি করপোরেশনের প্রথম মেয়র প্রয়াত বদরউদ্দিন আহমদ কামরানের বাসায় ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে বাসার জানালা ও পার্কিংয়ে থাকা গাড়ি ভাঙচুর করে। এসময় কয়েকজনকে মারধরও করে তারা। এরপর দুইপক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এসময় গোলাগুলির ঘটনাও ঘটে।

তবে সাবেক মেয়র কামরানের বাসায় হামলার কারণ সম্পর্কে কেউ কিছুই জানাতে পারেনি। এ বিষয়ে সিলেটের প্রথম মেয়র কামরানের ছেলে মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. আরমান আহমদ শিপলু বলেন, সংঘর্ষের ঘটনার সঙ্গে আমাদের পরিবারের কেউ জড়িত না। এরপরও আজ আমরা হামলার শিকার হলাম। এ ঘটনার পেছনে কারা আছে তা খুঁজে বের করতে প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

এদিকে, তাদের বাসভবনে হামলার খবর পেয়ে ছুটে যান সিলেট সিটি করপোরেশন মেয়র বিএনপি নেতা আরিফুল হক চৌধুরী, মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আসাদ উদ্দিন আহমদসহ আওয়ামী লীগ নেতারা। এসময় তারা কামরানের সহধর্মিণী মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসমা কামরান ও ছেলে ডা. আরমান আহমদ শিপলুর সঙ্গে কথা বলেন এবং এ ঘটনার নিন্দা জানান।


Leave a Reply

Your email address will not be published.