সৌদিতে ওমরাহ যাত্রীর বাস ও ট্রাকের সংঘর্ষ, একাধিক বাংলাদেশি নি’হত

সৌদিতে ওমরাহ যাত্রীর বাস ও ট্রাকের সংঘর্ষ, একাধিক বাংলাদেশি নি’হত

আন্তর্জাতিক: সৌদি আরবের মক্কা-মদিনা হাইওয়ে রুটে ওমরাহযাত্রীর বাস ও ট্রাকের সংঘ’র্ষে দুই বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আ’হত হয়েছেন আরও অনেকে। মক্কা ও

মদিনা হাইওয়ে পুলিশ এবং সিভিল ডিফেন্সের সহযোগিতায় আহতদেরকে পার্শ্ববর্তী একটি হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। নিহতদের নাম পরিচয় এখনো পাওয়া যায়নি। সোমবার (১১ এপ্রিল) এ দু’র্ঘটনা ঘটে। বিস্তারিত আসছে…

আরও পড়ুন: ‘আরও ক্ষমতাধর হয়ে ফিরবেন ইমরান খান’ পাকিস্তানের সদ্য সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের ক্ষমতাচ্যুতির প্রতিবাদে যুক্তরাষ্ট্রের উত্তর ভার্জিনিয়ার ব্রুকফিল্ড প্লাজার বাইরে জড়ো হয়েছিলেন পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) সমর্থকদের ছোট একটি দল।

এ সময় তাদের স্লোগানে ঘুরেফিরে আসছিল একটি কথাই: ‘ইমরান খান ফিরবেন। তিনি আরও ক্ষমতা নিয়ে ফিরে আসবেন।’ যুক্তরাষ্ট্রে পিটিআইর এই সমর্থকরা প্রতিবাদ জানানোর সময় একে অন্যের সঙ্গে আলাপকালে বারবারই বলছিলেন, ‘এটা মেনে নেওয়া যায় না।’ এ সময় সেখানে উপস্থিত এক সাংবাদিক তাদের কাছে এ বিষয়ে জানতে চান।

জবাবে প্রতিবাদকারীরা বলেন, ক্ষমতার পালাবদলে পাকিস্তান আবারও দুর্নীতি ও স্বজনপ্রীতির পুরোনো রীতিতে ফিরে যাচ্ছে। সংবাদমাধ্যম ডনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, স্বতঃস্ফূর্ত প্রতিবাদ জানাতে রোববার (১০ এপ্রিল) দলীয় পতাকা নিয়ে ব্রুকফিল্ড প্লাজার বাইরে জড়ো হয়েছিলেন পিটিআই সমর্থকরা।

কিন্তু তাদের সঙ্গে কোনো পোস্টার, ব্যানার বা প্ল্যাকার্ড ছিল না। ছিল শুধু রাগ আর হতাশা। তাদের মধ্যে খালিদ তানভীর নামে স্থানীয় এক দোকান মালিক বলেন, ‘পাকিস্তানের আদালতের রায় ভুল এবং ইমরান খানের বিরুদ্ধে নেওয়া পদক্ষেপকে যে বাহিনী সমর্থন করেছে তারাও ভুল।’

পিটিআইয়ের স্থানীয় প্রধান জনি বশির বলেন, ‘ইমরান খান নতুন শক্তি এবং নতুন দল নিয়ে ফিরবেন, এতে আমার কোনো সন্দেহ নেই। তার নতুন দলে কোনো কাপুরুষ থাকবে না।’ টানা প্রায় এক মাস নানা নাটকীয়তার পর পাকিস্তান পার্লামেন্টে অনাস্থা ভোটে প্রধানমন্ত্রীর পদ হারিয়েছেন ইমরান খান।

দেশটির ইতিহাসে তিনিই প্রথম প্রধানমন্ত্রী, যিনি অনাস্থা ভোটে পদ হারিয়েছেন। ইতিহাস গড়েছেন বিরোধীরাও। এই প্রথম কোনো প্রধানমন্ত্রীকে অনাস্থা ভোটের মাধ্যমে ক্ষমতাচ্যুত করতে পেরেছেন তারা। সংবাদমাধ্যম ডনের তথ্য বলছে, বিরোধী দলের নেতৃত্বে ছিলেন পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজের (পিএমএল-এন) নেতা শাহবাজ শরিফ।


Leave a Reply

Your email address will not be published.