হাইকোর্টে জামিন পেলেন সাবেক ডিআইজি মিজান

হাইকোর্টে জামিন পেলেন সাবেক ডিআইজি মিজান

৪০ লাখ টাকা ঘুষ লেনদেনের মামলায় পুলিশের সাময়িক বরখাস্ত উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) মো. মিজানুর রহমানকে ২ মাসের জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট।

এ মামলায় তাকে ৩ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছিলেন নিম্ন আদালত। বুধবার মিজানুর রহমানের জামিন আবেদনের শুনানি শেষে বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের বেঞ্চ জামিন মঞ্জুর করেন।

তার আইনজীবী মাহবুব শফিক এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, তবে অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দায়ের করা দুর্নীতির মা’মলায় গ্রে’ফতার হওয়ায় হাইকোর্টের আদেশের পরও মিজানুর রহমান কারাগার থেকে মুক্তি পাবেন না।

এ মামলায় সর্বোচ্চ শা’স্তি ৩৬ মাসের কারাদণ্ড হলেও তিনি ৩২ মাস ধরে কারাগারে আছেন বিবেচনা করে হাইকোর্ট মিজানুর রহমানকে জামিন দিয়েছেন। দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আইনজীবী খুরশিদ আলম খান বলেন, হাইকোর্টের জামিনের বি’রুদ্ধে

সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে আপিল করবে কমিশন। এর আগে, গত ৭ এপ্রিল হাইকোর্ট বেঞ্চ মিজানুরের নিম্ন আদালতের রায়কে চ্যালেঞ্জ করে দায়ের করা আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করেন এবং শুনানির জন্য ১৩ এপ্রিল দিন ধার্য করেন।

গত ২৩ ফেব্রুয়ারি ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৪ ঘুষ লেনদেনের মামলায় দুদকের সাময়িক বরখাস্ত পরিচালক খন্দকার এনামুল বাসির ও মিজানুর রহমানকে যথাক্রমে ৮ ও ৩ বছরের কারাদণ্ড দেন। মিজানের কাছ থেকে ঘুষ হিসেবে ৪০ লাখ টাকা নেয়ার দায়ে বসিরকে ৩ বছর

এবং অর্থপাচারের দায়ে ৫ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। তাদের সাজা একই সঙ্গে কার্যকর হবে বলেও জানিয়েছেন বিচারক। এছাড়া তাকে ৮০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। যা অনাদায়ে তাকে আরো ৬ মাস জেল খাটতে হবে। ঐ টাকা ঘুষ হিসেবে দেওয়ার জন্য মিজানকে ৩ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে জানিয়ে আদালত রায়ে বলেছেন, মিজান ও বসির ইতোমধ্যে কারাগারে যে সময় কাটিয়েছেন তা তাদের সাজা থেকে কেটে নেয়া হবে।

দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) ২০১৯ সালের ১৬ জুলাই ৪০ লাখ টাকা ঘুষ লেনদেনের অভিযোগে এ ২ জনের বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলা দায়ের করে। আজ হাইকোর্ট বেঞ্চ এ মামলা থেকে খালাস চেয়ে খন্দকার এনামুল বাসিরের দায়ের করা আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করেন। এ মামলায় বসিরকে ৮০ লাখ টাকা জরিমানা করার বিচারিক আদালতের আদেশের ওপরও বেঞ্চ স্থগিতাদেশ দিয়েছেন বলে জানান আইনজীবী খুরশিদ আলম খান।


Leave a Reply

Your email address will not be published.