পুলিশ হেফাজতে যুবকের মৃত্যু, বিক্ষোভ-সড়ক অবরোধ


মিজানুর রহমান মিজু, লালমনিরহাট প্রতিনিধি: লালমনিরহাটে জুয়াড়ী সন্দেহে এক যুবককে আটকের পর পুলিশ হেফাজতে তার মৃত্যু হয়েছে। স্বজনদের দাবি তার মৃত্যু হয়েছে পুলিশী নির্যাতনে।

লালমনিরহাটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ রবিউল ইসলাম জানিয়েছেন: লালমনিরহাট সদর উপজেলার হারাটি ইউনিয়নের হিরামানিক এলাকায় বৈশাখ উপলক্ষে গতকাল ১৪ এপ্রিল বৃহস্পতিবার চলছিল মেলা।

ওই মেলা সংলগ্ন এলাকায় চলছিল জুয়া। খবর পেয়ে রাত আনুমানিক ১১টার দিকে লালমনিরহাট সদর থানার পুলিশ সেখানে অভিযান চালিয়ে ধাওয়া করে মহেন্দ্রনগর

ইউনিয়নের কাজির চওড়া এলাকার দুলাল খানের পুত্র রবিউল ইসলাম খান(২৫) সহ দুইজনকে আটক করে। এদের মধ্যে রবিউল ইসলাম খান অসুস্থ হয়ে পড়লে পুলিশ তাকে চিকিৎসার

জন্য লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে নিয়ে আসে। রাত আনুমানিক সাড়ে ১১টার দিকে হাসপাতালের জরুরি বিভাগে চিকিৎসা চলাকালীন সময়ে রবিউল ইসলাম খান মারা যায়।

তার মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে এলাকাবাসি ও তার স্বজনরা রংপুর-লালমনিরহাট মহাসড়কের মহেন্দ্রনগর বটতলা এলাকায় রাস্তায় কাঠের গুড়ি ফেলে ও টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন।

এসময় ওই স্থানে দাড়িয়ে থাকা পুলিশের একটি পিকআপ ভাংচুর করে উত্তেজিত জনতা। সড়ক অবরোধের কারণে প্রায় ৪ঘন্টা যান চলাচল বন্ধ থাকে। এসময় সড়কের দুপাশে শতশত পণ্যবাহী ট্রাক,

বাসসহ বিভিন্ন যানবাহন আটকা পড়ে। ভোর চারটার দিকে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে উত্তেজিত জনতাকে আশ্বস্ত করলে তারা চলে যায়। পরে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

নিহতের পরিবার ও তার স্বজনরা দাবি করেন, রবিউলকে পিটিয়ে ও নির্যাতনে হত্যা করেছে পুলিশ। হত্যার বিচার দাবি করেন তারা। এ নিয়ে এলাকায় চলছে উত্তেজনা।


Leave a Reply

Your email address will not be published.