৫ দিনের ছুটি নিয়ে চীনে, দুই বছর কর্মস্থলে আসেননি নার্স

৫ দিনের ছুটি নিয়ে চীনে, দুই বছর কর্মস্থলে আসেননি নার্স

নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সিনিয়র স্টাফ নার্স শাহিনুর পারভীন রোজী পাঁচ দিনের ছুটি নিয়ে দুই বছর কর্মস্থলে আসেননি।

এর মাঝে তাকে চিঠি দেওয়া হলেও জবাব দেননি। এই সময়ে তিনি চীনে ছিলেন বলে জানা গেছে। দীর্ঘ সময় কর্মস্থলে না আসায় তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

শুক্রবার (১৫ এপ্রিল) উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আবু মো. আলেমুল বাসার জানান, অনুপস্থিতির ওই অভিযোগ কাগজপত্রে প্রমাণিত হওয়ায় তাকে বরখাস্তের সিদ্ধান্ত নিয়েছে নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদফতর। গত সপ্তাহে তাকে এ সংক্রান্ত চিঠি দেওয়া হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছি, ওই নার্স ২০১৭ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি কর্মস্থল থেকে পাঁচ দিনের ছুটি নিয়েছিলেন তিনি। এরপর দুই বছরের বেশি সময় ধরে কর্মস্থলে অনুপস্থিত ছিলেন।

মাঝে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ অনুমোদিত অনুপস্থিতির কারণ জানতে চেয়ে একই বছর ২ এপ্রিল তার ঠিকানায় একটি চিঠি দেয়। ওই পত্রের কোনও জবাব দেননি। হঠাৎ ২০১৯ সালে ৭ জুলাই কর্মস্থলে যোগদানের জন্য একটি পত্র দেন রোজী।

এদিকে, কর্মস্থলে অনুপস্থিতির জন্য ওই নার্সের বিরুদ্ধে ২০১৯ সালের ১৩ অক্টোবর একটি বিভাগীয় মামলা হয়। ওই মামলায় ব্যক্তিগত শুনানিতে তিনি উপস্থিত হন ২৭ অক্টোবর। তার জবাবও সন্তোষজনক ছিল না।

এতে প্রমাণিত হয় তিনি অবৈধভাবে কর্মস্থলে অনুপস্থিত ছিলেন। ফলে তাকে বরখাস্ত করার সিদ্ধান্ত নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদফতর। সেখান থেকে দেওয়া চিঠিতে স্বাক্ষর করেন অধিদফতরের অতিরিক্ত সচিব সিদ্দিকা আকতার। এ নিয়ে নার্স রোজীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি কোনও মন্তব্য করেননি।

ডা. আবু মো. আলেমুল বাসার জানান, ওই নার্স ব্যক্তিগত কাজের জন্য পাঁচ দিনের ছুটি নিয়ে চীনে যান। সেখানে তিনি উচ্চশিক্ষা গ্রহণ করেন এবং একটি প্রতিষ্ঠানে চাকরিও করেছেন। একইসঙ্গে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে যাবতীয় সুযোগ-সুবিধাও গ্রহণ করেন। এতে সরকারি কোষাগার থেকে যে অর্থ হাতিয়ে নিয়েছেন তিনি তা সম্পূর্ণ অন্যায় ও অবৈধ।


Leave a Reply

Your email address will not be published.