পুলিশের হেফাজতে মৃত্যু নিয়ে এবার যা বললেন জিএম কাদের


দেশজুড়ে: লালমনিরহাটে পুলিশের হেফাজতে রবিউল ইসলাম নামে এক যুবকের মৃত্যুতে ক্ষোভ ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান ও বিরোধী

দলীয় উপনেতা জিএম (গোলাম মোহাম্মদ) কাদের এমপি। তিনি শনিবার এক বিবৃতিতে নিহত রবিউলের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেছেন। পাশাপাশি

শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান। বিবৃতিতে জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান বলেন, পুলিশের হেফাজতে রবিউলের মৃত্যু মেনে

নেয়া যায় না। নিহতের পরিবার ও স্থানীয়দের অভিযোগ অনুযায়ী পুলিশের নির্যাতনে রবিউলের মৃত্যু হলে অবশ্যই দায়ী ব্যক্তিকে বিচারের মুখোমুখি হতে হবে।

অপরাধীকে কোনভাবেই ছেড়ে দেয়া যাবে না। তাই নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে রবিউলের মৃত্যুর প্রকৃত কারণ উদঘাটন করতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহবান জানান জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান জিএম কাদের।

আরও পড়ুনঃধর্মীয় স্বাধীনতাবিষয়ক মার্কিন অ্যাম্বাসাডর-অ্যাট-লার্জ (বিশেষ দূত) রাশাদ হুসাইন আগামীকাল রবিবার (১৬ এপ্রিল) ঢাকায় আসছেন।

চার দিনের এ সফরে তিনি সরকার, নাগরিক সমাজসহ বিভিন্ন ধর্মের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করবেন। এসব বৈঠকে ধর্মীয় স্বাধীনতা বিশেষ গুরুত্ব পাবে।

ঢাকায় বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল অ্যান্ড স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজ (বিআইআইএসএস) আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তাঁর বক্তব্য দেওয়ার কথা রয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানায়, ধর্মীয় স্বাধীনতাবিষয়ক মার্কিন বিশেষ দূত তাঁর এই সফরের অংশ হিসেবে কক্সবাজারে রোহিঙ্গাদের পরিস্থিতি পরিদর্শন করবেন। মিয়ানমারের

রাখাইনে রোহিঙ্গা মুসলমান জনগোষ্ঠীর ওপর নিপীড়নকে যুক্তরাষ্ট্র গত মাসে ‘জেনোসাইড’ ও ‘মানবতাবিরোধী অপরাধ’ হিসেবে সংজ্ঞায়িত করেছে।

উল্লেখ্য, রাশাদ হুসাইন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের ধর্মীয় স্বাধীনতা নীতি বিষয়ে উপদেষ্টা এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মুখ্য উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

আরও পড়ুনঃমামলার ভয় দেখিয়ে মোটরসাইকেলসহ দুই বন্ধুকে আটকে রেখে ১২ হাজার ৮০০ টাকা নিয়ে ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে এক পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে।

অভিযুক্ত ওই পুলিশ কর্মকর্তার নাম শাহদাৎ হোসেন। তিনি গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের বাসন থানার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) হিসেবে কর্মরত আছেন।

এ সময় তার দুই সহযোগী কনস্টেবল মো. মিন্টু ও মো. নোমান ঘটনাস্থলে ছিলেন। জানা গেছে, দুই বন্ধু গত বৃহস্পতিবার একটি নতুন মোটরসাইকেল নিয়ে বেড়াতে যান

গাজীপুরের মোল্লাপাড়া এলাকায়। সেখান থেকে ফেরার পথে রাত ৯টার দিকে তিন পুলিশ সদস্য তাদের গতিরোধ করেন। পরে তাদের মামলার ভয় দেখিয়ে ১২ হাজার ৮০০ টাকা

নিয়ে ছেড়ে দেন। ওই দুই বন্ধু ও তাদের পরিবারের সদস্যরা জানান, গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার মধ্যপাড়া ইউনিয়নের নস্করচালা গ্রামের মনির হোসেন ও আলফাজ হোসেন

নামের দুই বন্ধু একটি নতুন মোটরসাইকেল নিয়ে গাজীপুরের মোল্লাপাড়া এলাকায় বন্ধুদের সঙ্গে বেড়াতে যান। বেড়ানো শেষে তারা বাড়ি ফিরছিলেন। ফেরার পথে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের নাওজোড় এলাকায় উড়ালসড়কের পাশে পৌঁছালে বাসন থাকার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) শাহদত হোসেন, কনস্টেবল নোমান ও মিন্টু তাদের গতিরোধ করেন। পরে তারা মোটরসাইলের কাগজপত্র যাচাইয়ের নামে তাদের দেহ তল্লাশিসহ নানাভাবে হয়রানি ও মামলা দিয়ে গ্রেফতারের ভয়ভীতি দেখান।


Leave a Reply

Your email address will not be published.