নিজস্ব অর্থায়নে অ্যাম্বুল্যান্স কিনলেন ইউপি চেয়ারম্যান, জানা গেল রহস্য জনক কারণ


সংবাদ: পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলার ২নং তিরনই হাট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. আলমগীর হোসাইন ইউনিয়নবাসীর সেবায় একটি অ্যা’ম্বুল্যান্স কিনলেন।

ইউনিয়ন পরিষদের নিজস্ব অর্থায়নে কেনা এই অ্যাম্বুল্যান্সের মাধ্যমে এখন থেকে পুরো ইউনিয়নবাসী সেবা পাবে। অ্যাম্বুল্যান্সটি কিনতে ১০ লাখ টাকার মতো খরচ হয়েছে। অ্যা’ম্বুল্যান্স পেয়ে এলাকাবাসী বেশ খুশি।

জানা গেছে, সদ্য কেনা অ্যা’ম্বুল্যান্সটি ইউনিয়ন পরিষদের অধীনেই পরিচালিত হবে। একজন ইউপি সদস্য ও চালকের নাম্বার সেখানে দেওয়া আছে। অ’সুস্থ রোগীদের হাসপাতালে পাঠাতে ওই নাম্বারে ফোন দিলেই অ্যা’ম্বুল্যান্স হাজির হয়ে যাবে।

২০.৮২ বর্গ কি.মি. আয়তনের ৩২টি গ্রাম নিয়ে তিরনই হাট ইউনিয়নের মোট জনসংখ্যা ২৫ হাজারের মতো। এখানকার যোগাযোগের ব্যবস্থা বাস, ভ্যান, অটো ইত্যাদি। কিন্তু জরুরি সেবা পেতে নির্ভর করতে হয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে থাকা অ্যাম্বুল্যান্সটির ওপর।

পুরো উপজেলাবাসীর চাহিদা মেটায় বলে সব সময় তা পাওয়া যায় না। সামর্থ্যবানরা মাইক্রোবাস, কার ভাড়া করতে পারলেও গরিব লোকজনের সে সামর্থ্য নেই। ফলে দুর্ঘটনা বা জরুরি প্রয়োজনে মানুষজন অসহায় হয়ে পড়ে। এবার তারা উপকৃত হবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

কীভাবে এই টাকার সংস্থান হলো- এ বিষয়ে জানতে চাইলে মো. আলমগীর হোসাইন বলেন, আমার প্রয়াত বাবা আজহারুল ইসলাম যখন এই ইউপির চেয়ারম্যান ছিলেন তখন তিনি বিভিন্ন রাস্তার ধারে অনেকগুলো বৃক্ষরোপণ করেছিলেন। এই গাছগুলো এখন বেশ পরিপক্ক হয়েছে।

বর্তমান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে পরিপক্ব ও ঝুঁ’কিপূর্ণ গাছগুলো নিলাম দরপত্র বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বিক্রি করায় সেখান থেকে কিছু অর্থের সংস্থান হয়। তাছাড়া পরিষদের আওতাধীন বিভিন্ন মার্কেটের ঘর ভাড়া, জনগণের ট্যা’ক্সের টাকা সব মিলিয়ে ফান্ড ম্যানেজ করেই এই অ্যাম্বুল্যান্সটি কেনা হয়েছে। তিনি মনে করেন, এর মাধ্যমে অসহায়-দরিদ্র মানুষের উপকার হবে। স্থানীয় সেচ্ছাসেবী সংগঠন জাগ্রত তেঁতুলিয়ার অন্যতম সংগঠক অ্যাডভোকেট আহসান হাবিব সরকার ফেসবুকে লিখেছেন, জনগণের কল্যাণে, জনহিতকর কাজে, জনগণের টাকার সঠিক ব্যবহার কতজন করতে পারে? ধন্যবাদ, চেয়ারম্যান সাহেব।


Leave a Reply

Your email address will not be published.