পাতাল রেলের যাত্রীদের মাসে ভাড়া গুনতে হবে ২০-২৫ হাজার টাকা

পাতাল রেলের যাত্রীদের মাসে ভাড়া গুনতে হবে ২০-২৫ হাজার টাকা

সংবাদ: ঢাকায় প্রস্তাবিত পাতালরেল নির্মাণের পর সেটিতে যাতায়াতে একজন নিয়মিত যাত্রীদের প্রতি মাসে ২০ থেকে ২৫ হাজার টাকা ভাড়া

দিতে হবে বলে জানিয়েছেন নগর বিশেষজ্ঞরা। তারা বলছেন, এমন ব্যয়বহুল যোগাযোগ ব্যবস্থার জন্য ঢাকা শহর ও ঢাকাবাসী এখনো প্রস্তুত নয়।

এজন্য পাতালরেলের পরিকল্পনা বাদ দিয়ে ঢাকার যানজট সমাধানের জন্য ফুটপাত উদ্ধার ও উন্নত বাস সার্ভিসের প্রতি জোর দিয়েছেন তারা।

শুক্রবার দুপুরে ইনস্টিটিউট অব প্ল্যানিং অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (আইপিডি) আয়োজিত এক ভার্চুয়াল সংলাপে তারা এসব কথা বলেন। ‘ঢাকায় পাতালরেল প্রকল্প:

টেকসই পরিবহন পরিকল্পনার প্রাসঙ্গিকতায় উপযোগিতা বিশ্লেষণ’ শীর্ষক সংলাপে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন আইপিডির নির্বাহী পরিচালক অধ্যাপক আদিল মুহাম্মদ খান।

অধ্যাপক আদিল মুহাম্মদ খান বলেন, ঢাকা শহরে ২০৫০ সালের মধ্যে ২৫৮ কিলোমিটার পাতালরেল নির্মাণ করতে চায় সরকার। এতে মোট ১১টি রুট থাকবে। এর মধ্যে ২০৩০ সালের মধ্যে চারটি
রুট চালুর পরিকল্পনা আছে। ইতোমধ্যে এ সংক্রান্ত প্রকল্পের সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের কাজ শুরু হয়েছে। চলতি বছরের জুন মাসে সম্ভাব্যতা যাচাই ও প্রাথমিক নকশা তৈরির কাজ শেষ হবে। এ কাজেই ব্যয় হবে ৩১৮ কোটি টাকা। ‘২৫৮ কিলোমিটার পাতালরেল তৈরিতে মোট ব্যয় হবে ৬৫ দশমিক ৪৫ বিলিয়ন ডলার। প্রতি কিলোমিটারে ব্যয় হবে প্রায় ২ হাজার ৩৬২ কোটি টাকা। ২০৩০ সালের মধ্যে চারটি রুট নির্মাণ করতে যে ব্যয় হবে, তা চলতি অর্থবছরে দেশের মোট বাজেটের প্রায় অর্ধেক।’এমন ব্যয়বহুল প্রকল্প নেওয়ার জন্য ঢাকা শহর প্রস্তুত নয় বলে উল্লেখ করেন আইপিডির নির্বাহী পরিচালক। এ বিষয়ে নিজের ব্যাখ্যা তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘এখন পর্যন্ত যেসব দেশে পাতালরেল নির্মাণ করা হয়েছে, সেসব দেশের নাগরিকদের মাথাপিছু আয় আমাদের চেয়ে ২০ থেকে ৪০ গুণ বেশি।’

তাই ঢাকার সমস্যা সমাধানে সাশ্রয়ী ব্যয়ে রেলপথ উন্নয়ন, পথচারীবান্ধব ফুটপাত নির্মাণ ও বাস সেবাকে উন্নত করার পরামর্শ দেন আইপিডির নির্বাহী পরিচালক। মানুষের আয়ের ওপর তার যাতায়াত ব্যয়ের বিষয়টি বিবেচনায় নেওয়ার কথা বলেন আইপিডির পরিচালক ও রাজউকের নগর পরিকল্পনাবিদ আশরাফুল ইসলাম। তার পরামর্শ, পাতালরেলে নিয়মিত যাতায়াতে একজনের মাসে ২০ থেকে ২৫ হাজার টাকা খরচ হতে পারে। তাছাড়া পুরান ঢাকা ছাড়া শহরের অন্যান্য অঞ্চলের মাটির অবস্থাও খারাপ। এমন মাটির নিচ দিয়ে রেলপথ তৈরি করলে খরচ বেশি হয়। তাই খরচের বিষয়টি বিবেচনা করে আপাতত পাতালরেল না করার পক্ষে মত দেন এই নগর পরিকল্পনাবিদ।


Leave a Reply

Your email address will not be published.