ভিডিও ভাইরাল, সেই আ.লীগ নেতার বিরুদ্ধে নেওয়া হলো ব্যবস্থা


নারীর জু’তাপেটার ভিডিওতে ভাইরাল হওয়া বরগুনা সদর উপজেলার নলটোনা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম জাকিরকে দল থেকে বহিষ্কারের সুপারিশ করা হয়েছে।

শনিবার (২৩ এপ্রিল) সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এর আগে গত সোমবার (১৮ এপ্রিল) শাহ আলম জাকিরকে এ বিষয়ে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয় উপজেলা আওয়ামী। এ সময় পাঁচ সদস্যদের তদন্ত কমিটিও গঠন করা হয়।

সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহ মোহাম্মদ ওলিউল্লাহ ওলি বলেন, নলটোনা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম জাকিরের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এরপর বিষয়টি নিয়ে গত সোমবার বৈঠকে বসে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ।

বৈঠকে তাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। তদন্ত কমিটি সাত দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দেওয়ার পর আজ আমরা দলীয় কার্যালয়ে পুনরায় বৈঠক করেছি। বৈঠকে তদন্ত প্রতিবেদন ও কারণ দর্শানোর জবাব পর্যালোচনা করে আমরা শাহ আলম জাকিরকে সাময়িক ব’হিষ্কারের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. সিদ্দিকুর রহমান বলেন, আমরা বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করেছি। দলের ভাবমূর্তি অ’ক্ষুণ্ন রাখতে নলটোনা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম জাকিরকে বহিষ্কার করা জরুরি বলে আমরা মনে করেছি। তাকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কারের জন্য জেলা ও কেন্দ্রের কাছে চিঠি পাঠানো হবে।

শাহ আলম জাকির বলেন, আমি অপরাজনীতি ও ষড়’যন্ত্রের শিকার। আমাকে ষ:ড়যন্ত্র করে ফাঁসিয়ে জিম্মি করে চাঁদা আদায় করা হয়েছে। আমি আদালতে মামলা করেছি। মামলায় নির্দোষ প্রমাণিত হব। এ বিষয়ে বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি, তবে বিস্তারিত জানি না এখনো। তিনি দোষী প্রমাণিত হলে তাকে বহিষ্কারের জন্য কেন্দ্রে সুপারিশ করা হবে। কেন্দ্র পরবর্তী ব্যবস্থা নেবে।

প্রসঙ্গত, গত ৭ এপ্রিল নলটোনা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহ আলমকে জুতাপেটার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এ ঘটনায় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা শাহ আলমের বি’রুদ্ধে গত ১২ এপ্রিল উপজেলা আওয়ামী লীগের কাছে লিখিত অভিযোগ করেন এবং ১৬ এপ্রিল তাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয় উপজেলা আওয়ামী লীগ। সেই সঙ্গে ঘটনার তদন্তে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটিও করা হয়।


Leave a Reply

Your email address will not be published.