জবি থেকে সহকারী জজ হলেন যারা


সংবাদ: জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি): চতুর্দশ বাংলাদেশ জুডিশিয়াল সার্ভিসের সহকারী জজ পদের চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে। এতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬ জন

শিক্ষার্থী সহকারী জজ পদে উত্তীর্ণ ও মনোনীত হয়েছেন।তাদের এ সাফল্যে উচ্ছসিত বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষাক, শিক্ষার্থী এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড মো. ইমদাদুল হক।

২১ এপ্রিল বৃহস্পতিবার জেলা ও দায়রা জজের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক শরীফ এ এম রেজা জাকের স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বাংলাদেশ জুডিশিয়াল সার্ভিস কমিশনের ওয়েবসাইটে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রকাশিত ফলাফলে ১০২ জন শিক্ষার্থীদের মধ্যে জবি থেকে মনোনীত হয়েছেন ৬ জন। তারা হলেন, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ ব্যাচ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১০-১১ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী নাসির

উদ্দিন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ৯ম ব্যাচ এবং ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী মো. আবুল আলা মওদুদী (৭৪ তম), রায়হান এইচ চৌধুরী ও আনারুল ইসলাম মানিক (১১তম), বিশ্ববিদ্যালয়ের ১০ম ব্যাচ

এবং ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী ফাহমিনা ও রফিকুল ইসলাম (২১ তম)।প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাংলাদেশ জুডিশিয়াল সার্ভিসের সহকারী জজ পদে নিয়োগের উদ্দেশ্যে গৃহীত চতুর্দশ বিজেএস পরীক্ষায় সাময়িকভাবে ১০২ জন প্রার্থী মনোনীত হয়েছেন।

তাদের এ সাফল্যে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ইমদাদুল হক তাদেরকে প্রাণঢালা অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, সম্প্রতি সময়ে শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন সরকারি, বেসরকারি ও স্কলারশিপ নিয়ে উচ্চশিক্ষা গ্রহণে বা অন্যান্য কর্মক্ষেত্রে বেশ অবদান রাখছে। ভবিষ্যতে এ ধারা অব্যাহত রাখতে হবে।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সহকারী জজ হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার ব্যাপারে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় আইন বিভাগের বর্তমান চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. সরকার আলি আক্কাস বলেন, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সহকারী জজ হিসেবে নিয়োগ প্রাপ্ত সবাইকে আন্তরিকভাবে অভিনন্দন জানাই। আমাদের যদি হল থাকতো তাহলে এ সাফল্যের সংখ্যা আরো বহুগুণ বৃদ্ধি পেত।

শিক্ষার্থীরা মেসে থেকে টিউশনি করে নিজেদের পড়াশোনা চালিয়ে তার পাশাপাশি পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতে হয়। যদি হল থাকতো তাহলে তারা ঠাণ্ডা মাথায় পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতে পারতো। তাহলে আরো অনেকেই নিয়োগ পরীক্ষায় ভালো করতো।তিনি আরো বলেন, এত প্রতিবন্ধকতা সত্ত্বেও আমরা নতুন একটি বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে অনেক এগিয়ে আছি যেখানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনেক পুরনো ব্যাচ মিলিয়ে সহকারী জাজ নিয়োগ পরীক্ষায় অংশ নেয় প্রায় হাজারখানেক শিক্ষার্থী, সেদিকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অংশ নেয় প্রায় ৪শ’ থেকে ৫শ’ শিক্ষার্থী, সেদিক বিবেচনা করলে অনুপাতের দিক থেকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় অনেক এগিয়ে। তবে আমি আশা করছি হল হয়ে গেলে আমরা আরো এগিয়ে যাব।


Leave a Reply

Your email address will not be published.