তারা প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করেছে: তৈমূর


নিউজ ডেষ্ক- বাংলাদেশ জাতীয় বধির সংস্থার সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার বলেছেন, বধির দৃষ্টি প্রতিবন্ধী এবং সকল প্রতিবন্ধীদের পাশে থাকাটা আমি হৃদয়ের স্পন্দন মনে করি।

আমি মনে করি আল্লাহপাক তার দয়ার মাধ্যমে আমাকের পূর্ণাঙ্গ মানুষ হিসেবে দুনিয়াতে পাঠিয়েছেন। আমিও বধির হয়ে জন্ম নিতে পারতাম আমিও অন্ধ হয়ে জন্ম নিতে পারতাম।

যেহেতু আল্লাহ আমাকে ভাল রেখেছেন আমার মতো যাদেরকে আল্লাহ ভাল রেখেছেন। আমি মনে করি যারা ভাল নেই যারা প্রতিবন্ধী তাদের পাশে দাঁড়ানো আমাদের নৈতিক দায়িত্ব।

মঙ্গলবার (২৬ এপ্রিল) সন্ধ্যায় নারায়ণগঞ্জ বধির সংঘের উদ্যোগে আয়োজিত ইফতার ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। শহরের থানা পুকুরপাড় এলাকায় এই ইফতার ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

তৈমূর আলম খন্দকার বলেন, সরকার প্রতিবন্ধী সুরক্ষা আইন করেছে। কিন্তু সে আইনের কার্যকরিতা নেই। আমি যতদিন বাংলাদেশ জাতীয় বধির ফেডারেশনের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্বে ছিলাম

তখন বারবার চেষ্টা করেছি আইন কার্যকরি করার জন্য। পরবর্তীতে আমাদের সরিয়ে দেয়। তারপরেও আমি বধিরদের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করি তারাও যোগাযোগ রক্ষা করে। আমি প্রতিবন্ধীদের পাশে থাকতে চাই। আমি যতদিন বেঁচে থাকি ততদিন থাকতে পারি।

তিনি আরও বলেন, আমি বধিরদের ঘরটা ঠিক করার জন্য এক লাখ দিয়েছিলাম। কিন্তু পৌরসভার অনুমতির কারণে ঘরটা ঠিক হয়নি। বধিরদের জন্য সরকার একটি জায়গার সেংসন কিন্তু সেটাও পৌরসভা দেয়নি। আমরা আইনে লড়াইয়ের মাধ্যমে চেষ্টা করবো জায়গাটা আদায়ের জন্য। পৃধিবীর সব জায়গায় প্রতিদ্বন্দ্বীদের জন্য সকল জায়গায় আলাদা সুরক্ষা ব্যবস্থা রয়েছে। কিন্তু বাংলাদেশে এটা নেই। বাংলাদেশে প্রতিদ্বন্দ্বীদের জন্য মুখে মুখে অনেক কথা বলে কিন্তু কার্যকর নেই।

তৈমূর বলেন, আমি আগে বধিরদের জন্য যে সময় দিতাম এখন আরও বেশি সময় দিবো। আমি যে জায়গাটা আনছিলাম নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন সে জায়গাটা দেয়নি। সে জায়গাটা তারা চিলড্রেন পার্কের জন্য দিয়েছে। বারবার বারবার বলে জায়গা দিবে কিন্তু সে জায়গা দেয়নি। আমরা আপ্রাণ চেষ্টা করবো ভাল স্কুল করার জন্য এবং বধির সংঘকে সংস্কার করার জন্য।

বধির সংঘের সভাপতি মো. আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন সাধারণ সম্পাদক শহীদুল ইসলাম শাহীন, অ্যাডভোকেট সামসুজ্জমান খোকা, অ্যাডভোকেট শহীদ সারোয়ার, বধির স্কুলের সহ সভাপতি আব্দুল্লাহ আল ইউসুফ, নারায়ণগঞ্জ হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজের গভর্নিং বডির সদস্য সরকার আলম, ওয়াহিদ সাদাত বাবু, মহানগর মহিলা দলের সাংগঠনিক সম্পাদক ঢলি বেগম সহ বিভিন্ন পর্যায়ের লোকজন।

সুত্রঃ দ্যা নিউজ নারায়ণগঞ্জ ডটকম


Leave a Reply

Your email address will not be published.