কুসিক ভোটে মনোনয়ন পত্র নিতে প্রার্থীদের ব্যয় যত টাকা

কুসিক ভোটে মনোনয়ন পত্র নিতে প্রার্থীদের ব্যয় যত টাকা

রাজনীতি: আগামী ১৫ জুন কুমিল্লা সিটি করপোরেশন ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের মনোনয়নপত্রের জন্য ব্যয় করতে হবে সাড়ে ১১ হাজার

টাকা থেকে সর্বোচ্চ সাড়ে ৩৩ হাজার ৫০০ টাকা। ইসির উপ-সচিব মো. আতিয়ার রহমান মঙ্গলবার (২৬ এপ্রিল) এই সংক্রান্ত নির্দেশনা রিটার্নিং কর্মকর্তা শাহেদুন্নবী চৌধুরীর কাছে পাঠিয়েছেন। নির্দেশনা গুলো তিনি (রিটার্নিং কর্মকর্তা) স্থানীয়ভাবে প্রার্থীদের মাঝে প্রচার করবেন।

ইসির প্রেরিত নির্দেশনায় বলা হয়েছে- সিটি করপোরেশন নির্বাচন আইন অনুযায়ী, মেয়র নির্বাচনের ক্ষেত্রে প্রতিটি মনোয়নপত্রের সাথে অনধিক ৫ লক্ষ ভোটার সম্বলিত নির্বাচনি এলাকার জন্য ২০ হাজার টাকা জামানত দিতে হয়। কুমিল্লা সিটিতে মোট ভোটার পাঁচ লাখের কম। তাই মেয়র পদে নির্বাচনের জন্য প্রার্থীদের জামানত হিসেবে

জমা দিতে হবে ২০ হাজার টাকা। এখানে আরও বলা হয়েছে, সাধারণ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদের প্রার্থীরা অনধিক ১৫ (পনের) হাজার ভোটার সম্বলিত ওয়ার্ডের জন্য ১০ হাজার টাকা, ১৫ হাজার এক হতে ৩০ (ত্রিশ) হাজার ভোটার সম্বলিত ওয়ার্ডের জন্য ২০ হাজার টাকা,

৩০ (ত্রিশ) হাজার এক হতে ৫০ (পঞ্চাশ) হাজার ভোটার সম্বলিত ওয়ার্ডের জন্য ৩০ (ত্রিশ) হাজার টাকা এবং ৫০ হাজার এক ও তদূর্ধ্ব ভোটার সম্বলিত ওয়ার্ডের জন্য ৫০ হাজার টাকা জমা দেবেন।আর সংরক্ষিত ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থীরা ১০ হাজার টাকা জমা দেবেন।

এছাড়া মেয়র পদে প্রার্থীরা ২৭টি ওয়ার্ডের জন্য প্রতিটি ওয়ার্ডের ভোটার তালিকার সিডি (কমপ্যাক্ট ডিস্ক) বাবদ ৫০০ টাকা হারে ১৩ হাজার ৫০০ টাকা জমা দেবেন। আর কাউন্সিলর প্রার্থীরা ৫০০ টাকা জমা দেবেন। প্রত্যেক প্রার্থীকে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছ থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহের সময় নির্দিষ্ট অংকে টাকা জমাদানের প্রমাণস্বরূপ
ট্রেজারি চালান বা পে-অর্ডার বা কোনো তফসিলি ব্যাংকের রসিদ জমা দেবেন। ২৫ এপ্রিল নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিলে কুমিল্লা সিটি করপোরেশনে (কুসিক) আগামী ১৫ জুন ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে ঘোষণা করেন।

একই তফসিলে ছয়টি পৌরসভা ও ১৩৫টি ইউনিয়ন পরিষদে ভোট হবে। স্থানীয় সরকার এসব নির্বাচনে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ তারিখ ১৭ মে, বাছাই ১৯ মে, রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল দায়ের করা যাবে ২০-২২ মে পর্যন্ত। আপিল নিষ্পত্তি করা হবে ২৩-২৫ মেমনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষদিন ২৬ মে, প্রতীক বরাদ্দ ২৭ মে এবং ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে আগামী ১৫ জুন।


Leave a Reply

Your email address will not be published.