ভাইকে বাঘের চেয়েও বেশি ভয় পায়


দেশজুড়ে: আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে ইঙ্গিত করে নোয়াখালী-৪ আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ একরামুল করিম চৌধুরী বলেছেন, ‌

‘ভাইকে (মেয়র আবদুল কাদের মির্জা) বাঘের চাইতেও বেশি ভয় পায়। ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে কোম্পানীগঞ্জে মার্কা দেয় নাই, কিন্তু কবিরহাটে কেন দেওয়া হলো? কারণ একটাই কবিরহাটের মানুষ ভালো।

কোম্পানীগঞ্জের মতো মির্জা নাই এখানে।’ বৃহস্পতিবার (৫ মে) বিকেল ৫টার দিকে কবিরহাট উপজেলার সুন্দলপুর ইউনিয়নের নিজ বাড়িতে নেতাকর্মীদের সাথে ঈদের শুভেচ্ছো বিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন। এমপি একরাম বলেন,

একজন ভাবি একজন মায়ের মত। সে ভাবিকে তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য করে বক্তব্য রাখা হইছে। এটা কি পৃথিবীর মানুষ দেখে নাই। কিন্তু কোনো বিচার নেই। আমি শুধু একটু বলেছি ওই পরিবারের লোক। বাহ আমার সাধারণ সম্পাদক গিরিবাদ।

কত দিন আপনি বাদ রাখবেন রাখেন। মানুষ যখন ঘুরে দাঁড়ায়,মানুষের যখন মাথায় লাখে তখন হিতাহিত জ্ঞান থাকেনা। এখন মানুষ আস্তে আস্তে ঘুরে দাঁড়ানোর জন্য রেডি হচ্ছে। কবিরহাটবাসীর উদ্দেশ্যে বলেন,

আমরা কবিরহাটের একজন নেতৃত্বে চাই। আমরা সারা জীবন কি তাদের গোলামী থাকবো। পরিবার একটা পুরো বাংলাদেশ কাপাই দিছে। আমাকে প্রধানমন্ত্রী হাত বেধে দিছে। উনি আমার কাছে খবর পাঠিয়েছে। আমি যেন একটা কথাও ওদের বিরুদ্ধে না বলি। আমি বলবও না। এমনো শুনা যায় অনেকে কথা বলার জন্য অনেক টাকা পাইছে।এমনো শুনা যায় নিজ ঘরে আগুন লাগিয়ে কেউ আলু পোড়াতে চায়।

তাহলে ঘরও কয়লা হয়ে যাবে আলুও কয়লা হয়ে যাবে। কবিরহাটের লোকই তাকে এমপি বানাইছে। আজকে কবিরহাটে তিন ভাগে বিভক্ত। নেতৃত্ব যদি ঠিক না থাকে। কবিরহাটের মানুষ কেন যাবে আপনাদের কাছে। খালি এমপিগিরি করার জন্য ঢাকায় বসে থাকলে তো হবে না। আমার এলাকার মানুষ আমাকে দেখলে যে মনো শক্তি পাবে, তাদের সংসারেও সে মনো শক্তিটা কাজে লাগবে।

একরাম বলেন,আমি উপরে অনেক কথাবার্তা বলেছি।আমি শেখ হাসিনার কর্মী।যারা আমাকে সরাইতে চাইছেন,আগামী ডিসেম্বর মধ্যে আপনারাও থাকেন কিনা এটাও আমাদের দেখার বিষয়। বেশি বাড়াবাড়ি ভালো না। আপনারা ভারপ্রাপ্ত। কয়েকজন ফোন করে বলে মাইজদীতে এক হাজার লোক হয় নাই।ওবায়দুল কাদেরের কোনো প্রোগ্রামে যদি এক হাজার লোক না হয় এটাতো আমাদের জন্যও লজ্জার ব্যাপার।কারণ আজকে কবিরহাটের অনেকের রাগ আমি কেন দুই (সিট) আসনের জন্য বলছি। আরে দুই সিটের জন্য বলছি কবিরহাটের মানুষ অবহেলিত।এ অবহেলিত মানুষকে বুকের মধ্যে টানার জন্য। এরা আমাকে সৃষ্টি করে সুবর্ণচর- সদরে পাঠিয়েছে।


Leave a Reply

Your email address will not be published.