ফের আদালতে মামুনুল হক

ফের আদালতে মামুনুল হক

মামলা: চতুর্থ দফায় সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য নারায়ণগঞ্জ আদালতে আনা হয়েছে হেফাজতে ইসলামের বিলুপ্ত কমিটির যুগ্ম-মহাসচিব মামুনুল হককে।

সোমবার (৯ মে) সকাল ৯টার দিকে কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে কাশিমপুর কারাগার থেকে তাকে নারায়ণগঞ্জ আদালতে আনা হয়। আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) রকিব উদ্দিন আহমেদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, বেলা ১১ টায় নারায়ণগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতের বিচারক নাজমুল হক শ্যামলের আদালতে সাক্ষ্যগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। সাক্ষ্যদাতারা হলেন, নাজমুল হাসান শান্ত, মো. শফিকুল ইসলাম, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি সোহাগ রনি ও রতন মিয়া।

পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) রকিব উদ্দিন আহমেদ বলেন, চার্জশিটের ৯, ১০, ১১ ও ১২নং সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। আসামি পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট ওমর ফারুক নয়ন বলেন, মামুনুল হকের বিপরীতে চারজনের সাক্ষ্যগ্রহণের কথা রয়েছে। সে জন্য মামুনুল হককে নারায়ণগঞ্জ আদালতে আনা হয়েছে।

সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে তাকে পুনরায় কাশিমপুর কারাগারে নিয়ে যাওয়া হবে। নারায়ণগঞ্জ কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক আসাদুজ্জামান বলেন, সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য নারায়ণগঞ্জ আদালতে আনা হয়েছে মামুনুল হককে। এর আগে ২৫ জানুয়ারি মামুনুল হকের বিরুদ্ধে তৃতীয় দফায় সাক্ষ্য দিয়েছিলেন সোনারগাঁ উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম নান্নু, রিসোর্টের আনসার গার্ড ইসমাঈল ও রিশিপশন কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান।

২০২১ সালের ৩ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে রয়েল রিসোর্টে এক নারীর সঙ্গে অবস্থান করছিলেন মামুনুল হক। ওই সময় স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা তাকে ঘেরাও করে। খবর পেয়ে হেফাজতে ইসলামের স্থানীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকরা এসে রিসোর্টে ব্যাপক ভাঙচুর করে তাকে ছিনিয়ে নিয়ে যায়। পরে ৩০ এপ্রিল সোনারগাঁ থানায় মামুনুল হকের বিরুদ্ধে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ মামলা করেন ওই নারী। তবে ওই নারীকে তার দ্বিতীয় স্ত্রী বলে দাবি করেন মামুনুল হক।


Leave a Reply

Your email address will not be published.