পি কে হালদারের বিষয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য দিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

পি কে হালদারের বিষয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য দিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নিউজ ডেক্স: হাজার হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ ও পাচারের মামলার আসামি প্রশান্ত কুমার হালদারকে (পি কে হালদার) ভারতে আটক করার কোনো তথ্য বাংলাদেশে এখনও

আনুষ্ঠানিকভাবে আসেনি বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। আজ রোববার জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ প্রগতিশীল কলামিস্ট ফোরাম

আয়োজিত ‘শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন: ইতিহাসের পুনর্নির্মাণ’ শীর্ষক সেমিনার শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ তথ্য জানান। মন্ত্রী বলেন, পি কে হালদার বাংলাদেশে ওয়ারেন্টেড ব্যক্তি।

আমরা ইন্টারপোলের মাধ্যমে অনেক দিন ধরেই তাকে চাচ্ছিলাম। সে গ্রেপ্তার হয়েছে, তবে আমাদের কাছে এখনও অফিসিয়ালি কিছু (তথ্য) আসেনি। আমাদের যতো কাজ আমরা আইনগতভাবে করব।

এদিকে ভারতে গ্রেফতার হওয়ার পর এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক ও রিলায়েন্স ফাইন্যান্স লিমিটেডের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রশান্ত কুমার হালদারের (পিকে হালদার) তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন কলকাতার নগর দায়রা আদালত।

এর ফলে তাকে রিমান্ড হেফাজতে পেয়েছে ভারতের অর্থ-সংক্রান্ত কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা বাহিনী এনফোর্সমেন্ট ডাইরেক্টরেট (ইডি)। শনিবার (১৪ মে) গভীর রাতে স্পেশাল ইডি থেকে পিকে হালদারের রিমান্ড আবেদন করা হয়। রোববার সকালে রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

অর্থপাচার করে দেশ থেকে পালানোর পর শনিবার পি কে হালদার গ্রেফতার হন। তার আগে শুক্রবার (১৩ মে) পিকে হালদারের ঘনিষ্ঠ সহযোগীদের সন্ধানে ভারতের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালায় দেশটির কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা ইনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। ভারতের ১০ স্থানে অভিযান চালিয়ে পি কে হালদারের অন্তত ২২টি বাড়ির সন্ধান মেলে। এ ছাড়া বাড়িগুলো থেকে বেশ কিছু নথিও জব্দ করা হয়।

বাংলাদেশের পাশাপাশি ভারতেও নাগরিকত্ব নিয়েছিলেন পি কে হালদার। নিজের নাম পরিবর্তন করে রেখেছিলেন শিবশঙ্কর হালদার। এই নামে তিনি পশ্চিমবঙ্গ থেকে রেশন কার্ড করে নেন। এমনকি ভারতীয় ভোটার কার্ড, প্যান ও আধার কার্ডের মতো বিভিন্ন সরকারি পরিচয় জালিয়াতি করে তিনি নিজেকে শিবশঙ্কর হালদার বানিয়ে নেন।


Leave a Reply

Your email address will not be published.