পুলিশ-র‌্যাব সদস্যদের মধ্যে হাতাহাতি, অবশেষে জানা গেল কারণ

পুলিশ-র‌্যাব সদস্যদের মধ্যে হাতাহাতি, অবশেষে জানা গেল কারণ

সংবাদ: সাদা পোশাকে থাকায় ফেনী জেলার পরশুরামে পুলিশ ও র‍্যাব সদস্যদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে।

এঘটনায় সংশ্লিষ্ট দুই আইন শৃঙ্খলারক্ষাকারী বিভাগের কর্মকর্তাদের দাবি—সাদা পোশাকের জন্য পরিচয় নিয়ে ভুল বোঝাবুঝির কারণেই এমন ঘটনা ঘটেছে।

এ ঘটনায় পুলিশের চার সদস্য গুরুতর আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে দুজন পরশুরাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন। মঙ্গলবার (১৮ মে) রাতে পরশুরাম

ডাকবাংলো মোড়ে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ও র‌্যাব সূত্র জানায়, মাইক্রোবাসে করে মাদক পাচার হচ্ছে এমন সংবাদ পেয়ে সাদা পোশাকে ডাকবাংলো মোড়ে অবস্থান নেয় পরশুরাম মডেল থানা পুলিশের একটি দল।

এ সময় একটি মাইক্রোবাস থামিয়ে ভেতরে থাকা যাত্রীদের তল্লাশি করতে চান পুলিশ সদস্যেরা। এতে বাধা দেন যাত্রীবেশে থাকা র‌্যাব সদস্যেরা৷ পরে তাঁরা নিজেদের র‌্যাব সদস্য বলে পরিচয় দিলে পুলিশের সন্দেহ হয়।

একইভাবে পুলিশ পরিচয় জানতে পেরে যাত্রীবেশে থাকা র‌্যাব সদস্যেরা সন্দেহ প্রকাশ করেন। পরিচয় নিয়ে তর্কাতর্কির একপর্যায়ে উভয় পক্ষের মধ্যে হাতাহাতি ও মারামারির হয়। এ সময় পরশুরাম মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) রেজাউল আলম, কনস্টেবল জিতু সাহাসহ আরও দুই পুলিশ সদস্য আহত হন। পরশুরাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক স্বাস্থ্য কর্মকর্তা (আরএমও) ইয়াছিন আলাউদ্দিন ডালিম জানান, আহতদের মধ্যে রেজাউল ও জিতু স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন। অন্য দুজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে৷ উভয়পক্ষের ভুল বোঝাবুঝির কারণেই এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানান র‌্যাব-৭-এর ফেনী ক্যাম্প অধিনায়ক স্কোয়াড্রন লিডার জাবের আল ইমরান৷ তবে, চার পুলিশ সদস্য আহত হওয়ার ঘটনা তিনি জানেন না। এ বিষয়ে তিনি খোঁজ নেবেন বলে জানান। পরিচয় নিয়েই উভয় পক্ষের মধ্যে সন্দেহ তৈরি হওয়ায় এমন ঘটনা ঘটেছে জানিয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বদরুল আলম মোল্লা বলেন, ‘আহতের বিষয়টি পুরোপুরি অবগত নই৷’


Leave a Reply

Your email address will not be published.