আমার নাম বেশি নিলে তোমার স্বামী মন খারাপ করতে পারে

আমার নাম বেশি নিলে তোমার স্বামী মন খারাপ করতে পারে

নিউজ ডেক্স: সম্প্রতি পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান মুসলিম লিগ-নওয়াজের (পিএমএল-এন) ভাইস প্রেসিডেন্ট মরিয়াম নওয়াজকে উদ্দেশ্য করে ‘ইঙ্গিতপূর্ণ ও নারীবিদ্বেষী’ মন্তব্য করে তোপের মুখে পড়েছেন ।

শুক্রবার (২১ মে) মুলতানের সমাবেশে পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) চেয়ারম্যানের এমন বক্তব্যের সমালোচনায় মুখর হয়েছেন রাজনীতিক, সাংবাদিক ও সুশীল সমাজ। খবর জিও নিউজের।

১৯ মে মরিয়াম নওয়াজ সারগোধা জনসভায় ইমরান খানের কড়া সমালোচনা করেন। ওই জনসভায় দেওয়া বক্তব্যের প্রতি ইঙ্গিত করে ইমরান বলেন, ‘বৃহস্পতিবার সারগোধায় দেওয়া মরিয়ামের বক্তব্য কেউ একজন আমাকে পাঠিয়েছেন।’

পিটিআই চেয়ারম্যান ইমরান খান বলেন, ‘ওই ভাষণে সে (মরিয়াম) এমন আবেগ নিয়ে আমার নাম উচ্চারণ করেছে, আমি তাকে বলতে চাই-মরিয়াম, দয়া করে সতর্ক হও। তোমার স্বামী মন খারাপ করতে পারে, কারণ, তুমি বারবার আমার নাম বলে যাচ্ছ।’

ইমরানের এমন বক্তব্যের সমালোচনায় মুখর হয়েছেন পাকিস্তানের রাজনীতিক, সাংবাদিক ও সুশীল সমাজ। একজন নারীকে নিয়ে সাবেক প্রধানমন্ত্রীর মুখে এমন বক্তব্যে তারা হতবাক বলেও মন্তব্য করেন। পিটিআই চেয়ারম্যানের বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করেছেন মরিয়ামের চাচা প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ।

তিনি টুইটারে বলেন, মরিয়াম নওয়াজের বিরুদ্ধে এ ধরনের ‘নিন্দনীয় ভাষা’ গোটা জাতির, বিশেষ করে, নারীদের শক্তভাবে নিন্দা জানানো উচিত। পিটিআই চেয়ারম্যানের বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করেছেন মরিয়ামের চাচা প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ। তিনি টুইটারে বলেন, মরিয়াম নওয়াজের বিরুদ্ধে এ ধরনের ‘নিন্দনীয় ভাষা’ গোটা জাতির, বিশেষ করে, নারীদের শক্তভাবে নিন্দা জানানো উচিত।

শাহবাজ বলেন, ‘দেশ ও জাতির বিরুদ্ধে করা আপনার (ইমরান খান) অপরাধ, আপনার নিচুমানের রসবোধ দিয়ে আড়াল করা যাবে না। যে ব্যক্তি মসজিদে নববীর পবিত্রতাকে সম্মান করেন না, তাঁর কাছ থেকে কীভাবে কারও মা, বোন ও কন্যার সম্মানের প্রতি শ্রদ্ধাবোধ আশা করা যায়?’ তিনি আরও বলেন, ইতিহাসে ইমরানই প্রথম ব্যক্তি যিনি কোনো দলের নেতা হিসেবে অভদ্রতার অতলে পড়েছেন।

তাঁর দল একটি জাতি গঠনের জন্য যাত্রা শুরু করেছিল, কিন্তু তার পরিবর্তে জনগণের নৈতিকতা নষ্ট করেছে (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। পিএমএল-এন ভাইস প্রেসিডেন্টের উদ্দেশে ইমরান খানের দেওয়া অবমাননাকর বক্তব্যের নিন্দা জানিয়েছেন সাবেক প্রেসিডেন্ট আসিফ আলি জারদারি। তিনি বলেন, যাঁদের ঘরে মা-বোন আছে, তাঁরা এ ধরনের ভাষা ব্যবহার করেন না।

পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) কো-চেয়ারম্যান আরও বলেন, দয়া করে রাজনীতির নামে এতটা নিচে নামবেন না। তিনি বলেন, ‘আমার চাওয়া—কেউ ব্যক্তিগত পর্যবেক্ষণ থেকে এ বিষয়ে প্রধান বিচারপতিকে চিঠি দেবেন, আর তিনি এ বিষয়ে নোটিশ গ্রহণ করবেন।’ সাবেক সিনেটর ফারহাতুল্লাহ বাবর বলেন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী কী বিব্রতকর! আরও নিচে নামলেন। নির্বিঘ্নে অতল গহ্বরে হারিয়ে যাচ্ছেন। সাংবাদিক মেহর তারার বলেন, ‘মরিয়ামকে নিয়ে ইমরান খানের বক্তব্য অত্যন্ত কুরুচিকর। এমন কিছু তাঁর কোথাও কাউকে বলা উচিত হয়নি। আমি কোনো ধরনের রাখঢাক ছাড়াই এর নিন্দা জানাই।’ ইমরান খানের সাবেক স্ত্রী সাংবাদিক রেহাম খান টুইটারে লিখেন, ‘আমি খুবই লজ্জিত যে কোনো এক সময় আমি এ ধরনের একজন বাজে লোকের সঙ্গে ছিলাম।’


Leave a Reply

Your email address will not be published.