তাদের দাঁতভাঙা জবাব দিতে প্রস্তুত ছাত্রলীগ

তাদের দাঁতভাঙা জবাব দিতে প্রস্তুত ছাত্রলীগ

প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা সম্পর্কে বিরূপ মন্তব্যের ইস্যুতে গাজীপুরের রাজপথে উত্তাপ ছাড়াচ্ছেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। প্রতিদিনই হাজার হাজার

নেতাকর্মী নিয়ে জেলা ছাত্রলীগের নবনির্বাচিত সভাপতি সুলতান সিরাজুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক নাছির মোড়ল মহড়া, বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করছেন। সন্ধ্যা হলেই বেড়িয়ে পড়ছেন মশাল মিছিল নিয়ে।

অন্যদিকে, ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের হুমকি ও বাঁধার মুখে কোনো কোনো এলাকায় রাজপথে দাঁড়াতেই পারছে না ছাত্রদল। রোববার ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কর্মসূচি থাকলেও জেলার বিভিন্ন স্থানে দলীয় নেতাকর্মীরা ছাত্রলীগের বাঁধার মুখোমুখি হয়েছেন।

ফলে কেন্দ্রীয় কর্মসূচি পালন করতে পারেননি। কোনো কোনো স্থানে রাতের আঁধারে ঝটিকা মিছিল বের করে ছাত্রদল। অল্প সময়ের জন্য তারা রাস্তায় নামে। এভাবে রাস্তায় নেমে ছাত্রদলের দুই-এক মিনিটের মিছিলকে ছাত্রলীগ বলছে ‘ফটো সেশন’। ছবি তুলে ফেসবুকে দেওয়ার জন্যই তারা

গোপনে রাজপথে নামে বলে দাবি ছাত্রলীগের। অন্যদিকে ছাত্রদলের দাবি, ছাত্রলীগকে প্রতিহত করার পুরো প্রস্তুতিই তাদের রয়েছে। তবে তারা কোনো সংঘাতে যেতে চাচ্ছেন না। গাজীপুর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সুলতান সিরাজুল ইসলাম বলেন, ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা সারাদেশে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে অশান্ত করার চেষ্টা করছে।

বঙ্গবন্ধুর কন্যা ও প্রধানমন্ত্রী সম্পর্কে কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের এক নেতার বিরূপ মন্তব্য পুরো দেশের লাখ লাখ ছাত্রলীগ নেতাকর্মীর হৃদয়ে আঘাত করেছে। ছাত্রদল রাজপথে এলে নাকি দেশের ঐতিহ্যবাহী ছাত্রলীগ টিকতে পারবে না- এমন চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করে জেলা ছাত্রলীগ মাঠে রয়েছে। জেলা ছাত্রদলের সভাপতি সম্রাট ভূঁইয়া দাবি করেন,

ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা নানাভাবে তাদের নেতাকর্মীদের হুমকি দিচ্ছেন। এই হুমকি ও বাঁধার মধ্যেই তারা আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন। ছাত্রলীগের কারণে ছাত্রদল রাজপথে নামতেই পারছে না- এমন অভিযোগ পুরোপুরি সত্য নয়। রোববারও জেলার অন্তত ১০ স্থানে মিছিল করেছে ছাত্রদল।

জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নাছির মোড়ল সমকালকে বলেন, মাঝেমধ্যে ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা ফটোসেশন করতে রাস্তায় আসে। ওরা দুষ্কৃতকারী। যারা শান্ত শিক্ষাঙ্গনকে অস্থিতিশীল করতে চায় ওরা অন্তত ছাত্র হতে পারে না। ওদের দাঁতভাঙা জবাব দেওয়ার জন্য বঙ্গবন্ধুর হাতেগড়া ছাত্রলীগের লাখ লাখ নেতাকর্মী রাজপথে প্রস্তুত রয়েছে।

শ্রীপুর উপজেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক জিয়াউল করিম রিফাত মোড়ল বলেন, ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা সব সময় মাঠে ছিল, আছে ও থাকবে। জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নাছির মোড়ল গত পরশু নিজেই লাঠিসোঁটা নিয়ে প্রকাশ্যে মহড়া দিয়ে ভয় দেখানোর চেষ্টা করেছেন। তার সঙ্গে থাকা ছাত্রলীগের শত শত নেতাকর্মীর হাতেও লাঠিসোঁটা ছিল। দলীয় নেতাকর্মীদেরকে মারপিটও করা হচ্ছে। তবে কোনো ধরনের ভয়ভীতির তোয়াক্কা করে না ছাত্রদল। জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নাছির মোড়ল বলেন, জাতির পিতার কন্যা সম্পর্কে বিরূপ মন্তব্য করবে আর আমার বসে থাকব- এটা হতে পারে না। আমরা রাজপথে থাকলে ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা দাঁড়াতে পারবে না।


Leave a Reply

Your email address will not be published.