এই বিষয়ে কোনো ছাড় নয় জানালেন মার্কিন রাষ্ট্রদূত

এই বিষয়ে কোনো ছাড় নয় জানালেন মার্কিন রাষ্ট্রদূত

বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার হাস বলেছেন, গণতন্ত্র ও মানবাধিকার প্রশ্নে কোনো ছাড় দেওয়া হবে না।

আজ মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন। মার্কিন রাষ্ট্রদূত বলেন, র‌্যাব এবং এর সাবেক

ও বর্তমান ৭ কর্মকর্তার ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের জন্য র‌্যাবের জবাবদিহিতা ও সংস্কার চায় যুক্তরাষ্ট্র। তিনি একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও স্বচ্ছ নির্বাচনের কথাও বলেন, যেখানে নির্বাচন কমিশন ও স্বাধীন সংবাদমাধ্যমের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

বেনজীর আহমেদসহ ৬ কর্মকর্তা ও র‍্যাবের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা পিটার হাস বলেন, ‘প্রেসিডেন্ট বাইডেন স্পষ্ট করেছেন যে, মানবাধিকার ও মানবাধিকার রক্ষা মার্কিন পররাষ্ট্রনীতির কেন্দ্রবিন্দু।

র‌্যাব ও র‌্যাব কর্মকর্তাদের ওপর যে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে সেটা তারই ফল।’ গত বছরের ১০ ডিসেম্বর র‌্যাব এবং এর বর্তমান ও সাবেক ৭ কর্মকর্তার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে যুক্তরাষ্ট্র। যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের জন্য বাংলাদেশ গত কয়েক মাস ধরে নানা প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

বাংলাদেশের কী কী দৃঢ় উদ্যোগ নেওয়া দরকার জানতে চাইলে পিটার হাস বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র ২টি জিনিস চাইছে—সম্ভাব্য মানবাধিকার লঙ্ঘনে র‌্যাবের জবাবদিহিতা এবং সেই অপব্যবহারের ঘটনা যাতে আর না ঘটে তা নিশ্চিত করার জন্য সংস্কার।’

আগামী বছর অনুষ্ঠেয় জাতীয় নির্বাচন প্রসঙ্গে পিটার হাস বলেন, সম্প্রতি আমি আন্তর্জাতিক মানদণ্ড অনুযায়ী বাংলাদেশে অবাধ, সুষ্ঠু ও স্বচ্ছ নির্বাচন অনুষ্ঠানের গুরুত্বের কথা বলছি, যেন বাংলাদেশের জনগণ অবাধে তাদের নেতা নির্বাচন করতে পারে। তিনি বলেন, ‘এমন পরিস্থিতি তৈরি করতে কীভাবে কাজ করবে সেই সিদ্ধান্ত বাংলাদেশের ওপর নির্ভর করে।’

তিনি জানান, সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য সংবাদপত্রের স্বাধীনতা, শান্তিপূর্ণ পরিবেশ ও নির্বাচন কমিশনের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। পিটার হাস বলেন, ‘অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন নিশ্চিত করা বাংলাদেশ সরকার, বাংলাদেশের জনগণ, গণমাধ্যম ও সুশীল সমাজের কাজ।’


Leave a Reply

Your email address will not be published.