বিএনপির সঙ্গে বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সংলাপের তারিখ ঘোষণা

বিএনপির সঙ্গে বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সংলাপের তারিখ ঘোষণা

রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে ধারাবাহিক সংলাপের অংশ হিসেবে বিএনপি এবার বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সঙ্গে সংলাপে বসবে।

বুধবার (১ জুন) দুপুর ১২টায় বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির কার্যালয়ে এ সংলাপ অনুষ্ঠিত হবে। বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইং সদস্য শায়রুল কবির খান এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, সংলাপে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল অংশ নেবে। অন্যদিকে বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে থাকবেন দলটির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক।

এর আগে নাগরিক ঐক্য, লেবার পার্টি ও গণসংহতি আন্দোলনের নেতাদের সঙ্গে সংলাপে বসেন বিএনপির শীর্ষ নেতারা। সংলাপে দলগুলো নেতারা বিএনপির সঙ্গে সরকারবিরোধী যুগপৎ আন্দোলনে অংশ নেওয়ার ব্যাপারে একমত হয়েছেন।

আরোও পড়ুন: জবাবদিহি নিশ্চিত করার পাশাপাশি মানবাধিকার আইন মেনে চলা ছাড়া র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) ওপর আরোপিত যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের কোনো সুযোগ নেই বলে জানিয়েছেন ঢাকায় নিযুক্ত দেশটির রাষ্ট্রদূত পিটার হাস। মঙ্গলবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে ডিপ্লোমেটিক করেসপনডেন্টস

অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশের (ডিকাব) আলোচনায় মার্কিন রাষ্ট্রদূত এ কথা জানান। বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবস উপলক্ষে এ আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। সভায় মার্কিন রাষ্ট্রদূত আরও বলেন,
র‌্যাবের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগের সুরাহায় সুনির্দিষ্ট ব্যবস্থা ও বাহিনীটিকে জবাবদিহির আওতায় আনার বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ। জবাবদিহি ছাড়া বাহিনীটির ওপর আরোপিত নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের সুযোগ নেই। র‌্যাবকে মানবাধিকার আইন মেনে চলতে হবে। সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায় র‌্যাবকে কার্যকর একটি বাহিনী হিসেবে যুক্তরাষ্ট্র দেখতে চায় বলেও জানান পিটার হাস। পিটার হাস বাংলাদেশের চ্যালেঞ্জিং বিষয়গুলো নিয়ে বলেন, সুশাসন, মানবাধিকার, মতপ্রকাশের স্বাধীনতা, রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের পাশে থাকবে যুক্তরাষ্ট্র। আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে গত বছরের ১০ ডিসেম্বর যুক্তরাষ্ট্র র‌্যাবের সাবেক ও বর্তমান সাত কর্মকর্তার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। সে সময় ঢাকায় মার্কিন রাষ্ট্রদূতকে ডেকে অসন্তোষ প্রকাশ করে বাংলাদেশ সরকার। বিষয়টি নিয়ে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেনসহ বাইডেন প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলেছে ঢাকা, যা এখনো অব্যাহত রয়েছে।


Leave a Reply

Your email address will not be published.