যে ঘোষণা দিলেন মুক্তাদির-আরিফ

যে ঘোষণা দিলেন মুক্তাদির-আরিফ

রাজনীতি: দলীয় কর্মসূচি পালনে সিলেটে চাঙ্গা হয়ে উঠেছে বিএনপি। আন্দোলনে রাজপথে সক্রিয় হচ্ছেন নেতারা। বিশেষ করে সিনিয়র নেতারা সরাসরি নেতৃত্বে নামছেন।

গতকাল সোমবার দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান স্মরণে শোক র‌্যালিতে বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মীর অংশগ্রহণ ছিল। আর এতে নেতৃত্বে ছিলেন দলের চেয়ারপারসনের

উপদেষ্টা খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির ও কেন্দ্রীয় নেতা, সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। পরোক্ষভাবে সিলেটে দলের কর্তৃত্ব নিয়ে তাদের মধ্যে মনস্তাত্ত্বিক লড়াই চলছে। কিন্তু আন্দোলনে মাঠে দু’জন একসঙ্গে

সক্রিয় হয়ে উঠেছেন। আর এতে অনুষঙ্গ যোগাচ্ছেন দলের সিলেটের নতুন দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা। বিশেষ করে; জেলার সভাপতি আব্দুল কাইয়ূম চৌধুরী, মহানগর আহ্বায়ক আব্দুল কাইয়ূম জালালী পংকি,

জেলার সাধারণ সম্পাদক এমরান আহমদ চৌধুরী ও মহানগর সদস্য মিফতাহ সিদ্দিকী কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে দূরত্ব ঘুচিয়েই দলীয় কর্মকাণ্ড চালাচ্ছেন। নেতাদের মন্তব্য: গতকাল সিলেটে ইতিহাস সৃষ্টি করেছে দলটি।

কয়েক বছরের মধ্যে রাজপথে বিএনপি এত বড় শোডাউন দিতে পারেনি। এতে হাজারো নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। এবং সক্রিয়ভাবে প্রতিটি ইউনিটের সদস্যরা এসে শামিল হয়েছেন। তবে- সমাবেশে এক মঞ্চে দাঁড়িয়ে সিলেট থেকে সরকার পতনের আন্দোলন শুরুর ঘোষণা দিয়েছেন কেন্দ্রীয় নেতা খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির ও সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। সমাবেশে খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির ঘোষণা দেন;

‘আমরা এই সরকারের পতন ঘটিয়ে দেশপ্রেমিক, মানুষের কাছে দায়বদ্ধ, জাতীয়তাবাদী সরকার গঠন করে দেশের মানুষের মালিকানা ফিরিয়ে আনবো। ইনশাআল্লাহ সামনে শুভদিন আসবে।’ বক্তৃতার শুরুতেই খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মীর উদ্দেশ্যে বলেন- ‘সিলেটে আজ নতুন করে আরেকটি ইতিহাস রচনা করা হলো। যারা জিয়াউর রহমানের রাজনীতির বিরোধিতা করে তারা বিভাজনের রাজনীতি সৃষ্টি করে মানুষের আমানত ভোট লুট করে ক্ষমতায় বসে আছে।’ এদিকে সমাবেশে সিটি মেয়র ও কেন্দ্রীয় বিএনপি নেতা আরিফুল হক চৌধুরী বলেন- ‘আজ (গতকাল) থেকে পুণ্যভূমি সিলেট থেকে সরকার পতনের আন্দোলন শুরু হলো। আজ সিলেট জনসমুদ্রে পরিণত হয়েছে। সিলেটের মানুষকে নিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে নিরপেক্ষ সরকারের জন্য আন্দোলন চলবে বলে ঘোষণা দেন তিনি।’ সিলেট বিএনপি’র রাজনীতিতে এখন নেতৃত্বে দুই নেতা মুক্তাদির ও আরিফ। দু’জনকে কখনো কখনো দলীয় কর্মসূচিতে এক হতে দেখা যায়। এর বাইরে তাদের অবস্থান যোজন যোজন দূরে। সিলেট জেলা বিএনপি’র সভাপতি আব্দুল কাইয়ূম চৌধুরী জানিয়েছেন, ‘আমরা সিলেটে নিজেদের মধ্যে বিভাজনের রাজনীতি চাই না। সবাই আমরা সমান। আমাদের নেতাদের মধ্যে আগে দূরত্ব থাকলেও এখন নেই। বরং যারা কেন্দ্রীয় নেতা আছেন তারা সামনে থেকে আমাদের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। দলের স্বার্থে আমরা সবাই ঐক্যবদ্ধ বলে জানান তিনি।’ এদিকে গতকালের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মীর শোক র‌্যালিটি রেজিস্ট্রারি মাঠ থেকে শুরু হয়ে আম্বরখানা পয়েন্টে গিয়ে শেষ হয়। এই র‌্যালির সামনে ব্যানার ধরে পাশাপাশি ছিলেন মুক্তাদির ও আরিফ।

সঙ্গে ছিলেন আরেক কেন্দ্রীয় নেতা আব্দুর রাজ্জাক। এ ছাড়া, জেলার সভাপতি ও মহানগর আহ্বায়কও উপস্থিত ছিলেন। এর পরেই ছিল মহিলা দলের নেত্রীরা। পরে অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরাও ব্যানার সহকারে মিছিলে অংশ নেন। জেলার সাধারণ সম্পাদক এমরান আহমদ চৌধুরী ও মহানগর সদস্য সচিব মিফতাহ সিদ্দিকী জানিয়েছেন, কর্মসূচিতে জেলার ১৮ ইউনিটের নেতারা ব্যানার সহকারে মিছিল নিয়ে এসে শরিক হন। এ ছাড়া, মহানগরের ওয়ার্ড থেকে মিছিল সহকারে কর্মসূচি পালনে আসেন। অত্যন্ত সুশৃঙ্খলভাবে কর্মসূচি পালন করা হয়েছে বলে জানান তারা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি, সিটি কাউন্সিলর ফরহাদ চৌধুরী শামীম, মহিলা দলের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি সামিয়া বেগম, মহানগরের সিনিয়র নেতা আজমল বক্ত সাদেক, রেজাউল হাসান লোদী কয়েস, এমদাদ হোসেন, হুমায়ূন কবির শাহীন, সালেহ আহমদ খসরু, জেলার সাংগঠনিক সম্পাদক শামীম আহমদ, জেলা বিএনপি নেতা এডভোকেট হাসান পাটওয়ারী রিপন, ইশতিয়াক আহমদ ও সিদ্দিকুর রহমান পাপলু, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক আব্দুল আহাদ খান জামাল, মহানগর যুবদল আহ্বায়ক নজিবুর রহমান নজিব, জেলার সদস্য সচিব মকসুদ আহমদ, লিটন আহমদ প্রমুখ।

দোয়া মাহফিল: বিএনপি’র প্রতিষ্ঠাতা, জিয়াউর রহমানের ৪১তম শাহাদাতবার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া মাহফিল করেছে সিলেট জেলা বিএনপি। সোমবার বাদ জোহর নগরীর দরগাহে হযরত শাহজালাল (রহ.) মাজার মসজিদ প্রাঙ্গণে উক্ত দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। মাহফিলে জেলা বিএনপি’র অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। মাহফিলে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের মাগফেরাত কামনায় বিশেষ মোনাজাত করা হয়। এ ছাড়া, মাহফিলে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনা, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু, মরহুম আরাফাত রহমান কোকোর মাগফেরাত, নিখোঁজ বিএনপি নেতা এম ইলিয়াস আলী, ছাত্রদল নেতা ইফতেখার আহমদ দিনার, জুনেদ আহমদ ও গাড়িচালক আনসার আলী সহ গুমকৃত নেতাকর্মীদের সন্ধান কামনা এবং দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।


Leave a Reply

Your email address will not be published.