ইউপি ভোট স্থগিত, আ.লীগ প্রার্থীর বিরুদ্ধে মামলার নির্দেশ

ইউপি ভোট স্থগিত, আ.লীগ প্রার্থীর বিরুদ্ধে মামলার নির্দেশ

চট্টগ্রাম জেলার বাঁশখালী উপজেলার চাম্বল ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) নির্বাচন স্থগিত করেছেন নির্বাচন কমিশন (ইসি)। একইসঙ্গে সেখানকার আওয়ামী লীগ

মনোনীত প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান মুজিবুল হক চৌধুরীর বিরুদ্ধে মামলার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। চট্টগ্রামের সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের এই মামলার করার নির্দেশ নেওয়া হয়েছে।

রবিবার (৫ জুন) ইসির উপ-সচিব আতিয়ার রহমান স্বাক্ষরিত পৃথক দুটি চিঠিতে এই নির্দেশনা দেওয়া হয়। চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, আগামী ১৫ জুন অনুষ্ঠিতব্য চট্টগ্রাম জেলার বাঁশখালী

উপজেলার চাম্বল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী মুজিবুল হক চৌধুরী ঘোষণা দেন- ভোটকেন্দ্রে ইভিএমের বাটন টিপতে না পারলে টিপে দেওয়ার জন্য নিজের লোক রাখবেন। ইভিএমকে যথেচ্ছভাবে ব্যবহার করে বিজয় ছিনিয়ে আনার হুমকিও দেন তিনি।

ইভিএম না থাকলে রাতেই সব ভোট নিয়ে ফেলতেন বলেও মন্তব্য তার। মুজিবুলের এমন বক্তব্য বিভিন্ন পত্রিকা, টেলিভিশন ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। পরবর্তীতে স্থানীয় প্রশাসন ও নির্বাচন কর্মকর্তার মাধ্যমে তদন্তে তা প্রমাণিত হয়।

চিঠিতে বলা হয়, তার এসব কার্যক্রম ইউপি (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা, ২০১৬ , স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) নির্বাচন বিধিমালা, ২০১০ এবং দণ্ডবিধি অনুযায়ী অপরাধ। উল্লিখিত প্রেক্ষাপটে চাম্বল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুজিবুল হক চৌধুরীর বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় মামলা দায়েরের (জি আর মামলা) সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

আরেকটি চিঠিতে এই নির্বাচন পরবর্তী তফসিল ঘোষণা না করা পর্যন্ত স্থগিত করা হয়। প্রসঙ্গত, শুক্রবার মুজিবুলের বক্তব্য দেওয়া একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। স্থানীয় সূত্র জানায়, গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নিজ বাড়ি সিকদারপাড়ায় নির্বাচনি সমাবেশে ওই বক্তব্য দেন তিনি। ৫৪ সেকেন্ডের ভিডিওটিতে মুজিবুল হক চট্টগ্রামের ভাষায় বলেন, ‘এখানে সুষ্ঠু করি আমরা, অসুষ্ঠু করিও আমরা। আমরা বললে সুষ্ঠু, না বললে অসুষ্ঠু। যেদিকে যায় সেদিকে।’

নির্বাচনে সবার ভোটদানের বিষয়টি অপ্রয়োজনীয় দাবি করে মুজিবুল হক চৌধুরী বলেন, ‘মুসলমানের কাজ হলো একজন নামাজ পড়বে, পেছনে পাঁচ হাজার নামাজ পড়বে। এত মানুষের ভোট দেওয়ার দরকারও নেই।’ এসময় ভোটকেন্দ্রে ইভিএমের বাটন টিপতে না পারলে টিপে দেওয়ার জন্য নিজের লোক রাখবেন এবং ইভিএমকে যথেচ্ছভাবে ব্যবহার করে বিজয় ছিনিয়ে আনার হুমকি দেন। ইভিএম না থাকলে রাতেই সব ভোট নিয়ে ফেলতেন বলেও বক্তব্য রাখেন তিনি।


Leave a Reply

Your email address will not be published.