বিয়ের পিঁড়িতে বসা হলো না রবিউলের

বিয়ের পিঁড়িতে বসা হলো না রবিউলের

সংবাদ: বিয়ের পিঁড়িতে বসা হলো না চট্টগ্রামের কুমিরা ফায়ার স্টেশনের ফায়ার ফাইটার নওগাঁর রবিউলের।

সীতাকুণ্ডে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করার সময় অন্য সহকর্মীর মতো প্রাণ হারাতে হয় তাকেও। মরদেহ নিজ গ্রামে পৌঁছালে নেমে আসে শোকের ছায়া।

এদিকে, রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন করা হয় মানিকগঞ্জের আরেক ফাইটার রানা মিয়ার মরদেহ। উপার্জনক্ষম ব্যক্তিকে হারানো পরিবারকে সহযোগিতা করার আশ্বাস প্রশাসনের।

বাড়িতে আসার কথা ছিল ক’দিন পরই। আসলেন ঠিকই, তবে নিথর দেহে। সীতাকুণ্ড কনটেইনার ডিপোতে লাগা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে যান চট্টগ্রাম ফায়ার সার্ভিসে কর্মরত রানা মিয়া।

কেমিক্যাল বহন করা কনটেইনার ব্লাস্ট হলে অন্য সহকর্মীর মতো রানারও মর্মান্তিক মৃত্যু হয়। সোমবার (৬ জুন) সকালে তার মরদেহ পৌঁছায় মানিকগঞ্জের শিবালয়ের নবগ্রামের নিজ বাড়িতে। রাষ্ট্রীয় মর্যাদা শেষে স্থানীয় একটি কবরস্থানে রানাকে দাফন করা হয়।

মানিকগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক মো. শরীফুল ইসলাম বলেন, নিহতের পরিবারকে সর্বোচ্চ সহযোগিতা করা হবে ফায়ার সার্ভিসের পক্ষ থেকে। শিবালয় নিবার্হী কর্মকর্তা মো. জাহিদুল রহমান বলেন, উপজেলা প্রশাসন থেকে নিহত রানার পরিবারকে সার্বিক সহায়তা করা হবে। এছাড়া তিনি আরও বলেন, আমরা সার্বক্ষণিক মনিটরিংয়ের পদক্ষেপও নিচ্ছি।

এদিকে, ঈদুল আযহার ছুটিতে বিয়ের পিঁড়িতে বসার কথা ছিল ফায়ার ফাইটার রবিউলের। কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাস, অন্যকে বাঁচাতে গিয়ে নিজের জীবন উৎসর্গ করলেন নওগাঁর বালুডাঙ্গা উপজেলার রবিউল। তার অকাল মৃত্যুতে শোকে স্তব্ধ পুরো গ্রাম।

চট্টগ্রামের কুমিরা ফায়ার স্টেশনে কর্মরত মো. আলাউদ্দিনকে নোয়াখালীর চাটখিল উপজেলার বানসা গ্রামে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন করা হয়েছে। এছাড়া, অগ্নিকাণ্ডের চিত্র মোবাইলে ধারণকালে বিস্ফোরণে নিহত মৌলভীবাজারের অলিউর রহমান নয়নের মরদেহ গ্রামের বাড়িতে পৌঁছালে সেখানেও নামে শোকের ছায়া।


Leave a Reply

Your email address will not be published.