পুলিশের সাথে মারামারি, পুলিশের হাতেই তুলে দিলেন রিমান্ডে! এটা কোন দেশের আইন

পুলিশের সাথে মারামারি, পুলিশের হাতেই তুলে দিলেন রিমান্ডে! এটা কোন দেশের আইন

সম্প্রতি ঘটে যাওয়া রাজধানীর জুরাইন রেলগেট এলাকায় এক ট্রাফিক সার্জেন্টকে মা’রধরের ঘটনায় একটি মা’মলা হয়েছে।

পুলিশের ওপর হামলার অভিযোগে দায়ের করা মা’মলায় আদালত এক আ’সামির জামিন ও পাঁচ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ডের আদেশ দিয়েছেন।

পুলিশ কর্তৃক তিন জন বিজ্ঞ আইনজীবীকে ঢাকার শ্যামপুর থানায় মিথ্যা ও হ’য়রানিমূলক মামলায় গ্রেফতার করা সহ, পুলিশি হেফাজতে নি’র্যাতন ও দুইজন বিজ্ঞ আইনজীবীকে রি’মান্ডে নেওয়ার

ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে নেটদুনিয়ায়। সম্প্রতি এই চলমান ঘটনাটি নিয়ে ফেসবুকে ব্যারিস্টার সুমনের একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। সেখানে উক্ত ঘটনা নিয়ে কথা বলেছেন ব্যারিস্টার সুমন।

এসময় তিনি বলেছেন, আদালত মামলায় জামিন দিয়ে তদন্তের নির্দেশ দিতে পারতেন। এর পরিবর্তে জামিন নামঞ্জুর করে রিমান্ডে পাঠিয়েছেন আদালত। আদালতে একতরফা আদেশ হয়েছে। এটা তো আর মাদক, ধ’র্ষণ, হ’ত্যার মামলা না। একটি সাজানো মিথ্যা মামলা।

আজ যে পুলিশের সাথে মারামারি, আবার সেই পুলিশের হাতেই তুলে দিলেন! এটা কোন দেশের আইন। রিমান্ড মঞ্জুর হওয়া আসামীরাও একজন আইনজীবী। অন্যদিকে সোহাগ উল ইসলাম রনি একজন শিক্ষানবিশ আইনজীবী।

তাদের বিরুদ্ধে পুলিশ মিথ্যা মামলা দায়ের করেছে। এই মামলায় আসামিরা জামিন পাওয়ার যোগ্য। কিন্তু তাদের জামিন দেওয়া হয়নি। এদিকে নারী আইনজীবী ইয়াসিন জাহান নিশান অন্তঃসত্ত্বা থাকায় আদালত তাকে জামিন দিয়েছেন। অথচ আরও দুই আইনজীবীকে (একজন সনদধারী,

একজন শিক্ষানবিশ) জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ডে পাঠানো হয়েছে। আদালত মামলা জামিন দিয়ে তদন্তের নির্দেশ দিতে পারতেন। এর পরিবর্তে জামিন নামঞ্জুর করে রিমান্ডে পাঠিয়েছেন আদালত। আদালতে একতরফা আদেশ হয়েছে। এতে প্রমাণিত হয় যে, দেশে আইন বিভাগ নয়, শুধু প্রসাশনিকভাবেই চলছে।

আজ যেটা ওদের সঙ্গে ঘটেছে, কাল আমার সঙ্গেও যে এ ধরনের ঘটনা ঘটবে না! তার কোনো নিশ্চয়তা নেই। কারন দেশ আজ অন্ধ। প্রসাশনকে খুশি করতেই সর্বদা ব্যস্ত। সাধারণ মানুষদের কোনো পরোয়া নাই। এসময় তিনি আরও বলেছেন যে, উক্ত ঘটনা বিশ্লেষণ করে আমরা এর সুষ্ঠু তদন্ত চাই। যাতে সবাই ন্যায় বিচার পায় আর প্রসাশনের হয়রানি থেকে রক্ষা পায়।

ভিডিও দেখতে এখানে ক্লিক করুন


Leave a Reply

Your email address will not be published.