ছেলেকে ধ’র্ষনে সহযোগিতা করেন বাবা ও এক নারী

ছেলেকে ধ’র্ষনে সহযোগিতা করেন বাবা ও এক নারী

রংপুরে সাত বছরের শিশু ধ’র্ষণ মামলার প্রধান আসামি ঘুটুসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

ধ’র্ষণের ঘটনায় ঘুটুকে তার বাবা এবং এক নারী সহযোগিতা করেছে বলে জানিয়েছে র‍্যাব।

শনিবার দুপুরে রংপুর নগরীর আলমনগর র‌্যাব-১৩ এর সদর দপ্তরে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান অধিনায়ক রেজা আহমেদ ফেরদৌস।

তিনি জানান, উপজেলার দক্ষিণ খলেয়া কাহারটারী গ্রামের মেজবাউল ইসলাম ঘুটু (২৮) গত ২ জুন তার বাবা আজহারুল ইসলামের সহযোগিতায় স্থানীয় সূর্যিনা বেগমের (২২) বাড়িতে সাত বছরের শিশুকে জোরপূর্বক ধ’র্ষণ করে।

ওই শিশুকে টাকার প্রলোভন দেখিয়ে বাড়িতে ডেকে আনেন সূর্যিনা বেগম। গ্রেপ্তার ঘুটুকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ধ’র্ষণের কারণ হিসেবে চাঞ্চল্যকর তথ্য পেয়েছেন বলে দাবি করেছেন র‍্যাব-১৩ অধিনায়ক রেজা আহমেদ ফেরদৌস।

তিনি বলেন, জিজ্ঞাসাবাদে ঘুটু জানিয়েছে তার পরিবারের সদস্যরা বিশ্বাস করে তাকে জ্বিনে আছর করেছে। এ কারণে জিনের আছর থেকে মুক্তি পেতে তাকে বিভিন্ন ওঝা-কবিরাজের কাছে নিয়ে যাওয়া হয়।

এদের মধ্যে এক কবিরাজ পরামর্শ দেন, ঘুটু যদি কোনো শিশুর সঙ্গে এমন সম্পর্ক স্থাপন করে তাহলে সে জ্বিনের আছর থেকে মুক্তি পাবে। সেই পরামর্শ অনুযায়ী সূর্যিনা বেগমের সঙ্গে যোগাযোগ করে তারা।

এ ঘটনায় ওই শিশুটির বাবা রংপুরের গঙ্গাচড়া থানায় একটি ধ’র্ষণ মামলা দায়ের করলে ছায়া তদন্ত শুরু করে র‌্যাব। পরে শনিবার ভোরে গাইবান্ধা গোবিন্দগঞ্জ পৌরসভা এলাকা থেকে আসামিদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ঘটনার সঙ্গে জড়িত স্থানীয় কবিরাজকেও গ্রেপ্তারে র‍্যাবের অভিযান অব্যাহত আছে বলে জানিয়েছেন রেজা আহমেদ ফেরদৌস।


Leave a Reply

Your email address will not be published.