কুসিক নির্বাচন: ৫৪ কেন্দ্রের ফলাফলে এগিয়ে রিফাত

কুসিক নির্বাচন: ৫৪ কেন্দ্রের ফলাফলে এগিয়ে রিফাত

কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন শান্তিপূর্ণ ও উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট গ্রহন শেষ হয়েছে।

এখন চলছে বিভিন্ন কেন্দ্রের ফলাফল ঘোষণা। দুই লাখ ২৯ হাজার ৯২০ জন ভোটারের মোট ১০৫টি কেন্দ্রের মধ্যে ৫৪টি কেন্দ্রের ফলাফল জানা গেছে।

প্রাথমিক ফলাফলে আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী আরফানুল হক রিফাত ৫৪ কেন্দ্রে পেয়েছেন ৩০, ৮৫০ ভোট,

স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী মনিরুল হক সাক্কু পেয়েছেন ২৭, ৯৫০ ভোট ও নিজামউদ্দিন কায়সার পেয়েছেন ১৩, ৩৬৭ ভোট।

এর আগে উৎসবমুখর পরিবেশে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।

কুমিল্লা সিটির পাশাপাশি পাঁচটি পৌরসভা, চারটি উপজেলা পরিষদ এবং দেড় শতাধিক ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ভোট অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সকাল থেকেই ভোটাররা কেন্দ্রে আসতে শুরু করেন। তবে কুমিল্লার বিভিন্ন কেন্দ্রের তথ্য থেকে জানা যায়, পুরুষের চাইতে নারী ভোটারের উপস্থিতি ছিল বেশি। নির্বাচন চলাকালে কোথাও বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি লক্ষ্য করা যায়নি।

সারাদেশের দৃষ্টি এখন কুসিক নির্বাচনের দিকে। কাজী হাবিবুল আউয়াল কমিশনের অধীনে প্রথম নির্বাচন এটি। তাই নির্বাচনে কোনো ধরনের ফাঁক রাখতে চাচ্ছে না কমিশন। যে কোনো নির্বাচনের তুলনায় বেশি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

ইভিএম সহ ভোটের সরঞ্জাম কুমিল্লা জেলা স্কুলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার কাছে হস্তান্তর করে নির্বাচনী কর্মকর্তারা। আর জেলা শিল্পকলা একাডেমী থেকে ভোটের ফলাফল প্রকাশ করছেন রির্টানিং অফিসার মোহাম্মদ শাহেদুননবী চৌধুরী।

এর আগে উৎসব মুখর পরিবেশে ভোট দেন কুমিল্লা সিটির বাসিন্দারা। সকাল থেকেই কেন্দ্রে কেন্দ্রে ছিলো ভোটারদের দীর্ঘ লাইন।

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজিয়েট স্কুল ভোট কেন্দ্রে ভোট দেন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী আরফানুল হক রিফাত। শতভাগ জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী তিনি। একই কেন্দ্রে ভোট দেন স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী নিজামউদ্দিন কায়সার। কেন্দ্রে বুথ সংখ্যা কমানো এবং ধীরগতিতে ভোটের অভিযোগ করেন তিনি।

নবাব হোচ্ছাম হায়দার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে ভোট দেন স্বতন্ত্র প্রার্থী মনিরুল হক সাক্কু। তিনি বলেন, ইভিএম এ ভোট ধীরগতি। তবে ভোটের পরিবেশ নিয়ে সন্তুষ্টি জানান।

রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. শাহেদুন্নবী চৌধুরী বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে সব কিছুই করা হয়েছে। কুমিল্লা জেলা ও পুলিশ প্রশাসন যথেষ্ট তৎপর। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কোনো শঙ্কার কারণ নেই।

এবারের নির্বাচনে নারী ভোটার এক লাখ ১৭ হাজার ৯২, পুরুষ ভোটার এক লাখ ১২ হাজার ৮২৬ জন। আর দুজন তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার। মোট ১০৫টি কেন্দ্রের ৬৪০টি কক্ষে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। মেয়র পদে ৫ জন ছাড়াও সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১১১ জন ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ৩৬ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।


Leave a Reply

Your email address will not be published.