দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, আহত…

দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, আহত…

কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোট কেনার জন্য টাকা বিতরণের অভিযোগে দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর কর্মী সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া এবং ককটেল

বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় কাউন্সিলর প্রার্থী হুমায়ুন কবিরের তিন কর্মী আহত হয়েছেন। তাদের কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৪ জুন) দিবাগত গভীর রাতে নগরীর ১৫ নম্বর ওয়ার্ডের কাটাবিল স্কুলের সামনে এ ঘটনা ঘটে।স্থানীয়রা জানান, কাটাবিল এলাকার লাটিম প্রতীকের কাউন্সিলর প্রার্থী আরমানুর রহমান আরমানের লোকজন

টাকা দিয়ে ভোট কেনার চেষ্টা করছিলেন। এ সময় করাত প্রতীকের প্রার্থী হুমায়ুন কবিরের লোকজন বাধা দিলে তাদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে লাটিম প্রতীকের প্রার্থী আরমানুর রহমান আরমানের মোবাইল ফোনে একাধিকবার ফোন দিলে বন্ধ পাওয়া যায়। এ বিষয়ে কোতয়ালি থানার ওসি সহিদুর রহমান বলেন, ‘ঘটনাটি মানুষের মুখে শুনেছি।

কেউ লিখিত অভিযোগ করেনি।’কুমিল্লা সিটি করপোরেশন ২০১২ ও ২০১৭ সালের দুই নির্বাচনে জয়ী হয়েছেন বিএনপি নেতা মনিরুল হক সাক্কু। এই নির্বাচনে মেয়র পদে পাঁচ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তারা হলেন– আওয়ামী লীগ মনোনীত আরফানুল হক রিফাত (নৌকা),

স্বতন্ত্র প্রার্থী মনিরুল হক সাক্কু (টেবিল ঘড়ি), মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিন কায়সার (ঘোড়া), রাশেদুল ইসলাম (হাতপাখা) ও কামরুল আহসান বাবুল (হরিণ প্রতীক)। এর মধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থীর বিরুদ্ধে সাধারণ ভোটারদের হুমকি-ধামকি ও ভয়ভীতি দেখানোর অভিযোগ তুলেছেন সাক্কু ও কায়সার। অপরদিকে নৌকার প্রার্থী অভিযোগ করেছেন, কিছু প্রার্থী নির্বাচনে কালো টাকা ছড়াচ্ছেন।


Leave a Reply

Your email address will not be published.