ব্রিটিশ পার্লামেন্টের সামনে সমাবেশে যা বললেন বিএনপি নেতা

ব্রিটিশ পার্লামেন্টের সামনে সমাবেশে যা বললেন বিএনপি নেতা

রাজনীতি: বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মারুফ হোসেন বলেছেন, ‘বাংলাদেশে গণতন্ত্র, আইনের শাসন, মানবাধিকার ও বিচার বিভাগের

কোনো স্বাধীনতা নেই। বর্তমানে একটি ফ্যাসিস্ট, মাফিয়া ও গভীর রাতের সরকার ক্ষমতায় রয়েছে। তারা জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়নি। এই সরকার মিথ্যা ও

বানোয়াট মামলা দিয়ে বিএনপির নেতাকর্মীদের হয়রানি করছে।’ তিনি অবিলম্বে গুরুতর অসুস্থ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে বিদেশে সুচিকিৎসার সুযোগ ও তার মুক্তি দাবি করেছেন।

যুক্তরাজ্যে সফররত ড. খন্দকার মারুফ হোসেন মঙ্গলবার লন্ডনে ব্রিটিশ পার্লামেন্টের সামনে সাংবাদিকদের দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন।

এর আগে ড. মারুফ ব্রিটিশ পার্লামেন্টের সামনে খালেদা জিয়ার বিদেশে সুচিকিৎসার সুযোগ দেওয়ার ও অবিলম্বে মুক্তির দাবিতে যুক্তরাজ্য বিএনপির উদ্যোগে অনুষ্ঠিত বিশাল সমাবেশে অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন।

বিএনপি নেতা ড. খন্দকার মারুফ হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, ‘বর্তমান সরকার তারেক রহমানকে মিথ্যা মামলা দিয়ে দেশে যেতে বাধার সৃষ্টি করেছে। তাকে রাজনীতি করার সুযোগ দেওয়া হচ্ছে না। বিএনপি নেতা ইলিয়াস আলী, চৌধুরী আলমসহ অসংখ্য নেতাকর্মীকে গুম, খুন, অপহরণ করা হয়েছে। দেশে গণতন্ত্র, আইনের শাসন, মানবাধিকার ও বিচার বিভাগের কোনো স্বাধীনতা নেই।’

তিনি বলেন, ‘অবিলম্বে বর্তমান ফ্যাসিস্ট, বাকশালি সরকারকে পদত্যাগ করে একটি নির্দলীয়, নিরপেক্ষ সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করতে হবে। ওই নির্দলীয় সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সেই নির্বাচনে সব রাজনৈতিক দল অংশগ্রহণ করবে। দেশে প্রতিষ্ঠিত হবে একটি গণতান্ত্রিক সরকার।’

ড. মারুফ যুক্তরাজ্যের উদাহরণ টেনে সাংবাদিকদের বলেন, ‘দেখুন এখানে গণতন্ত্র আছে, মানুষের স্বাধীন মতপ্রকাশের সুযোগ আছে। আর বাংলাদেশে কী হচ্ছে?

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আর যা-ই হোক, শেখ হাসিনার অধীনে বাংলাদেশে কোনো নির্বাচন হবে না।’ ড. খন্দকার মারুফ হোসেন ‘বর্তমান সরকারকে সর্বক্ষেত্রে চরম ব্যর্থ, অযোগ্য ও দুর্নীতিবাজ আখ্যা’ দিয়ে বলেন, ‘দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে মানুষের জীবন নাভিশ্বাস হয়ে উঠেছে। সরকার মেগা মেগা প্রকল্পে মেগা দুর্নীতি করছে। তাদের দুঃশাসন ও গণবিরোধী কার্যকলাপের দরুন জনগণ এখন এই সরকারের বিরুদ্ধে চলে গেছে। জনগণই গণআন্দোলনের মাধ্যমে ইনশাআল্লাহ, এই সরকারের পতন ঘটাবে।’


Leave a Reply

Your email address will not be published.