গাড়ি আটকে চাঁদা দাবির ঘটনায় করুণ পরিনতি নারীর

গাড়ি আটকে চাঁদা দাবির ঘটনায় করুণ পরিনতি নারীর

ঢাকার সাভারে ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকোর একটি সিগারেটের গাড়ি আটকিয়ে চাঁদা দাবি ও বিক্রয় প্রতিনিধিকে মারধরের অভিযোগে তাজনীন সুলতানা

খুকুমনি (৪১) নামের এক নারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শুক্রবার (১৭ জুন) গ্রেফতার ওই নারীকে সাভার মডেল থানা থেকে ঢাকা আদালতে পাঠানো হয়। এর আগে গতকাল বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) সন্ধ্যায় সাভারের

ইমান্দিপুরের চুঙ্গিরপাড় এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। চাঁদা না দেওয়ায় বিক্রয় প্রতিনিধিকে মারধর করে সিগারেট লুটের অভিযোগ রাতেই মামলা দায়ের পর ওই নারীকে গ্রেফতার দেখানো হয়। তবে এই মামলায় অন্যরা এখনো পলাতক।

অভিযুক্ত তাজনীন সুলতানা খুকুমনি সাভারের ইমান্দিপুরের চুঙ্গিরপাড় এলাকার এসএম জিতের স্ত্রী ও যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আবু আহমেদ নাসিম পাভেলের ছোট বোন। তার বিরুদ্ধে ভাই পাভেলের ছত্রছায়ায় ত্রাস ও চাঁদাবাজির রাজত্ব কায়েমের অভিযোগ রয়েছে।

ভুক্তভোগীরা হলেন, ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধি হাকিম খাঁন (৪৩) ও ভ্যানচালক পলাশ (৪৪)। তাদের বিস্তারিত পরিচয় পাওয়া যায়নি। কোম্পানির সাভার জোনের ম্যানেজার মোক্তার হোসেন বাদী হয়ে এ ব্যাপারে অভিযোগ দায়ের করেছেন।

স্থানীয় ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল সাড়ে ১১টার দিকে গাড়িতে সিগারেট লোড করে ইমান্দিপুরের চুঙ্গিরপাড় এলাকার দিকে বিক্রির জন্য যান বিক্রয় প্রতিনিধি হাকিম ও পলাশ। তারা চুঙিরপাড় এলাকায় পৌঁছলে খুকুমনি তার বাহিনী নিয়ে সিগারেট কোম্পানির একটি ভ্যান আটক করেন।

এ সময় তাদের কাছে ২ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। দাবিকৃত চাঁদা না দেওয়ায় লোহার রড দিয়ে বিক্রয় প্রতিনিধিকে এলোপাতাড়ি মারধর করেন খুকুমণি ও তার বাহিনী। তারা ওই এলাকায় সকাল সাড়ে ১১টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত হট্টগোল করেন। পরে জরুরি সেবা ৯৯৯-এ কল পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে খুকুমনিকে আটক করে নিয়ে যায়। একইসঙ্গে আহত বিক্রয় প্রতিনিধিদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

এ বিষয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও সাভার মডেল থানার এসআই উম্মে হানি বলেন, আমরা ৯৯৯-এ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যাই। সেখানে গিয়ে ঘটনার সত্যতা মেলে। পরে ঘটনাস্থল থেকে মূল হোতা তাজনীনকে আটক করে থানায় নেওয়া হয়। এ ব্যাপারে ব্রিটিশ টোব্যাকো কম্পানির সাভার জোনের ম্যানেজার মোক্তার হোসেন বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। এই মামলা ৬ জন আসামিসহ অজ্ঞাত আরো ২ থেকে ৩ জন রয়েছেন। বাকিদেরও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।


Leave a Reply

Your email address will not be published.