ইভিএমের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়ে যা বললেন সিইসি

ইভিএমের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়ে যা বললেন সিইসি

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল বলেছেন, আমরা কারো উপর কোন মতামত চাপিয়ে দিতে পারি না, চাপিয়ে দিবোও না।

সেই ধরনের কোন ইচ্ছাও আমাদের নেই। আমাদের উদ্দেশ্য হচ্ছে ইভিএম সম্পর্কে আপনাদের ধারণা নেয়া। আপনাদের প্রশ্ন-উত্তর যদি থাকে সেগুলো আপনারা উপস্থাপন করেন।

আমাদের যারা ইভিএম সম্পর্কে বোঝেন, তারা আপনাদের প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করবেন। রবিবার (১৯ জুন) রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনের সম্মেলন কক্ষে ১৩টি রাজনৈতিক দলের

প্রতিনিধিদের সাথে ইভিএম বিষয়ক মতবিনিময় সভার শুভেচ্ছা বক্তব্যে প্রধান নির্বাচন কমিশনার এ কথা বলেন। সিইসি বলেন, ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) আমরা এখনও চূড়ান্ত কোন সিদ্ধান্ত নেইনি।

ইভিএম নিয়ে বিভিন্ন ধরনের কথা-বার্তা হচ্ছে গণমাধ্যমে। যার ফলে আমরা সকলকে জানিয়েছি, ইভিএম নিয়ে আমরা এখনও কোন চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করিনি। তিনি বলেন, আপনারা জানেন কিছুদিন আগেও আমরা ইভিএম এর মাধ্যমে নির্বাচন করেছি।

তারপরও রাজনৈতিক মহলে এবং পত্র-পত্রিকার মাধ্যমে যেটা আমরা জানতে পেরেছি যে, ইভিএম নিয়ে ঐক্যমত পাওয়ার ইয়তে নেই। যেহেতু আমরা নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার করেছি, সেহেতু আমাদের ধারণা নিতে হবে। আপনাদের মতামত স্বাধীন মতামত হবে বলেই আমরা বিশ্বাস করি।

নির্বাচন কমিশনের নিবন্ধিত রাজনৈতিক ৩৯টি দলকে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন যাচাইয়ের সুযোগ দিচ্ছে ইসি। এজন্য তিন ধাপে ৩৯টি রাজনৈতিক দলকে আমন্ত্রণ জানাবে ইসি। এরই ধারাবাহিকতায় আজ প্রথম ধাপে ১৩টি রাজনৈতিক দলকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

এছাড়া, নির্বাচন কমিশন ইতিমধ্যে নিবন্ধিত বাকি দলগুলোর সাধারণ সম্পাদককে চিঠি দিয়েছে। এক্ষেত্রে দলগুলো চার সদস্যের কারিগরি টিম/প্রতিনিধি পাঠাতে পারবে। দ্বিতীয় ধাপে ২১ ও শেষ ধাপে ২৮ জুন রাজনৈতিক দলগুলোকে আমন্ত্রণ জানানো হবে।

আজকে যেসব দল ইসি’র আমন্ত্রণ পেয়েছে- জাতীয় পার্টি, জাতীয় পার্টি-জেপি, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ, বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি-বিজেপি, জাকের পার্টি, বাংলাদেশ মুসলিম লীগ, গণফোরাম, গণফ্রন্ট, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি, বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্ট-বিএনএফ, জাতীয়তাবাদী গণতান্ত্রিক আন্দোলন এনডিএম ও বাংলাদেশ কংগ্রেস।


Leave a Reply

Your email address will not be published.