বন্যাকবলিতদের জন্য বিএনপির ৩ পরিকল্পনা

বন্যাকবলিতদের জন্য বিএনপির ৩ পরিকল্পনা

পাহাড়ি ঢলে উত্তর-পূর্বাঞ্চলসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে সৃষ্ট ভয়াবহ বন্যা পরিস্থিতিতে তিনটি কর্মপরিকল্পনা নিয়েছে বিএনপি। প্রথমত, পানিবন্দি মানুষকে উদ্ধার ও তাদের

দোরগোড়ায় খাবার পৌঁছে দেওয়া, দ্বিতীয়ত, বন্যা পরবর্তী সময়ে দুর্গতদের জন্য গৃহ নির্মাণ, খাবার, ওষুধের ব্যবস্থা এবং তৃতীয়ত, বন্যায় যাদের কৃষিজমি

নষ্ট হয়েছে তাদের জন্য বীজতলা তৈরিসহ বিনামূল্যে বীজ বিতরণের ব্যবস্থা। গতকাল রবিবার বিকালে গুলশানে চেয়ারপারসনের অফিসে বিএনপি গঠিত বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ কমিটির সভায় এসব সিদ্ধান্ত হয়।

সভা শেষে এ ব্যাপারে জানান বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু। তিনি বলেন, বিএনপি আপাতত দলের নানা সাংগঠনিক কার্যক্রম স্থগিত রেখে বন্যাকবলিত বানভাসিদের সবচেয়ে বেশি প্রাধান্য দিচ্ছে। টুকু বলেন,

সিলেট বিভাগের বিভিন্ন জেলায় গত ১০০ বছরে এমন বন্যা হয়নি। বন্যার তোড়ে গবাদি পশু থেকে শুরু করে সবকিছু ভেসে চলে যাচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে গণমানুষের দল হিসেবে বিএনপি সবার পাশে দাঁড়িয়েছে। সিদ্ধান্ত হয়েছে আমাদের প্রতিটি অঙ্গ

সংগঠন বিএনপির ব্যানারে বন্যা কবলিত এলাকায় কাজ করবে এবং তারা প্রত্যেকটা সংগঠন একটা করে স্টিয়ারিং কমিটি করবে। সেই স্টিয়ারিং কমিটি তাদের সংগঠনের কাজকর্মগুলো ঠিকমত হচ্ছে কিনা সেগুলো দেখাশোনা করবে।

টুকু বলেন, তারা দুই দিনের মধ্যে তাদের কর্মপরিকল্পনা স্থির করে ত্রাণ কমিটির আহ্বায়ক হিসেবে আমার কাছে জমা দেবে। এখন পর্যন্ত আমরা সিলেটে আমাদের কর্মীরা প্রায় ১০ হাজার লোকের কাছে খাবার পৌঁছে দিয়েছে। বড় বড় নৌকা ভাড়া করে জলবন্দি মানুষকে উদ্ধার করে পাড়ে নিয়ে আসার ব্যবস্থা করেছে। সেখানে প্রায় আমাদের ১০০ নৌকা কাজ করছে।

ছাতকে বন্যার প্রকোপ বেশি জানিয়ে তিনি বলেন, ওখানে আমাদের কর্মীরা নিজেরা প্রায় ১০ লাখ টাকা তুলে বন্যার্তদের মাঝে ব্যয় করছে। আমরা মানুষের পাশে আছি। বিএনপির চেয়ারপারসন নির্দেশনা দিয়েছেন আমরা যেন এই ব্যাপারে সবচেয়ে বেশি প্রায়োরিটি দেই। সাংগঠনিক কাজ কর্মের থেকেও এখন আমাদের বেশি প্রায়োরিটি থাকবে বানভাসি মানুষের পাশে দাঁড়ানো এবং তাদের জন্য কাজ করা-বলেন টুকু।


Leave a Reply

Your email address will not be published.