সকালেই এল শতাধিক মৃত্যুর খবর

করোনাভাইরাসের ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট ছড়িয়ে পড়েছে সারাদেশে। পরিস্থিতির ভয়াবহতায় উচ্চঝুঁকিতে রাজশাহী, খুলনা ও সাতক্ষীরা জেলা। সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় (সোমবার সকাল ৮টা থেকে

মঙ্গলবার সকাল ৮টা পর্যন্ত) দেশের করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এবং উপসর্গ নিয়ে ১০ জেলায় ১০৫ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। এদিকে লকডাউনেও থামানো যাচ্ছে না আক্রান্তের হার।

আর রোগীর চাপ সামলাতে দিশেহারা হাসপাতালগুলো। কোনো কোনো এলাকা থেকে হাসপাতালে শয্যা ওঅক্সিজেন সংকটের খবরও পাওয়া যাচ্ছে। নিচে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের বিভিন্ন জেলার করোনার চিত্র তুলে ধরা হলো-

রাজশাহী: রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ১৯ জনের মৃত্যু হয়েছে।
রংপুর: রংপুরে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে ২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

ঠাকুরগাঁও: ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালের করোনা ইউনিটে গত ২৪ ঘণ্টায় ৬ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ

পঞ্চগড়: পঞ্চগড়ে গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় আরও একজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় করোনায় মোট ৩২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এছাড়া নতুন করে আরও ৬১ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি শনাক্ত হয়েছে। পঞ্চগড় জেলায় এ পর্যন্ত মোট করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৬৮৩ জন।খুলনা: খুলনা মহানগরীর চারটি হাসপাতালের করোনা ইউনিটে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৯ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে জেলা সিভিল সার্জন।সাতক্ষীরা: সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ২৪ ঘণ্টায় করোনা ও করোনার উপসর্গ নিয়ে ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে।

কুষ্টিয়া: জেলার জেনারেল হাসপাতালে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে ৯ জনের মৃত্যুর খবর দিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।
চুয়াডাঙ্গা: চুয়াডাঙ্গায় সদর হাসপাতালের করোনা ইউনিটে উপসর্গ নিয়ে ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে।ময়মনসিংহ: ময়মনসিংহ মেডিকেলে কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় ১০ জন এবং উপসর্গ নিয়ে ৮ জনসহ মোট ১৮ জনের মৃত্যু হয়েছে।বরিশাল: বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন ১১ জন। শনাক্তের হার ৫৫ শতাংশ। চট্টগ্রাম: গত ২৪ ঘণ্টায় মহানগরীর বিভিন্ন হাসপাতাল ছাড়াও অন্যান্য জেলার হাসপাতালগুলোতে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *