কঠোর লকডাউন শিথিল করে প্রজ্ঞাপন জারি!

কোরবানির ঈদে মানুষের চলাচল শিথিল হচ্ছে। আজ মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। আগামীকাল বৃহস্পতিবার (১৫ জুলাই)

থেকে ২৩ জুলাই পর্যন্ত চলমান কঠোর বিধিনিষেধ শিথিল করে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।জানা গেছে, লকডাউন শিথিলের সিদ্ধান্ত হলেও বেসরকারি সব

অফিস বন্ধ থাকবে। আর ভার্চুয়ালি সরকারি অফিসের কার্যক্রম চলবে। কোরবানি ঈদের মানুষের চলাচল ও পশুরহাটে কেনাবেচার বিবেচনায়

লকডাউন শিথিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এই সময়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলবে গণপরিবহণ।খোলা থাকবে শপিংমল ও দোকানপাট। এদিকে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগসূত্রে জানা গেছে,

বিধিনিষেধ বাড়ানোর প্রস্তাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনুমতি দিয়েছেন। সেই নথি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে অনুমোদন হয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে এসেছে। আজ প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

আরও পড়ুন= ঈদের পর ফের যে দিন থেকে সর্বাত্মক লকডাউন শুরুঃ কুরবানি ঈদের মানুষের চলাচল ও পশুরহাটে কেনাবেচার বিবেচনায় লকডাউন শিথিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। আগামী ১৫ থেকে ২২ জুলাই পর্যন্ত লকডাউন শিথিল করে

শিগগিরই প্রজ্ঞাপন জারি করবে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। এ সময়ে শর্তসাপেক্ষে ​স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলবে গণপরিবহণ। খোলা থাকবে শপিংমল ও দোকানপাট।

আজ সোমবার (১২ জুলাই) মন্ত্রিসভার বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয়। এ তথ্য জানিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। কুরবানি ঈদে মানুষের চলাচল ও পশুর হাটে কেনাবেচার বিবেচনায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

তবে ঈদের পর ফের ১৪ দিনের জন্য সর্বাত্মক লকডাউন দেওয়া হবে। প্রধানমন্ত্রী কার্যালয় থেকে এ বিষয়ক নথি অনুমোদন হয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে এসেছে।ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার অনুমতি মিললেই যেকোনো সময় জারি হবে প্রজ্ঞাপন। সূত্রটি জানায়, ঈদ উপলক্ষে শিথিল লকডাউনের আট দিন স্বাস্থ্যবিধি মেনে এক আসন ফাঁকা রেখে চলবে সব গণপরিবহণ।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *