লকডাউনের প্রজ্ঞাপনে যা বলা হয়েছে

দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ আর মৃ’ত্যুতে যখন নিত্যনতুন রেকর্ড হচ্ছে, তখন ঈদ উদযাপনে নয় দিনের জন্য লকডাউনের সব বিধিনিষেধ স্থগিত রাখল সরকার।

মঙ্গলবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের এক প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, ১৪ জুলাই মধ্যরাত থেকে ২৩ জুলাই সকাল ৬টা পর্যন্ত সব বিধিনিষেধ শিথিল করা হল।

পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপন, জনসাধারণের যাতায়াত, ঈদ পূর্ববর্তী ব্যবসা-বাণিজ্য পরিচালনা, দেশের আর্থ-সামাজিক অবস্থা এবং অর্থনৈতিক কার্যক্রম স্বাভাবিক রাখার স্বার্থে- এ সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা বলা হয়েছ প্রজ্ঞাপনে।

তবে এই সময়েও জনগণকে সব অবস্থায় সতর্ক থাকতে, মাস্ক পরাসহ স্বাস্থ্যবিধি ‘কঠোরভাবে’ অনুসরণ করতে বলেছে সরকার। ঈদের ছুটির পর ২৩ জুলাই সকাল ৬টা থেকে ৫ অগাস্ট মধ্যরাত পর্যন্ত আগের বিধিনিষেধগুলো আবারও কার্যকর হবে বলে প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়েছে।

খেলার মাঠে নিজেদের সবটুকু দিয়ে আপ্রাণ চেষ্টা করেছেন মেসি ও নেইমার। কিন্তু ভাগ্য সঙ্গে ছিল না হারতে হয়েছে ব্রাজিলকে। তাই ঘরের মাঠে শিরোপা হারানোর যন্ত্রণায় পুড়তে হয়। কান্নায় ভেঙে পড়েন। তবে সব ভুলে আবার ‘প্রিয়’বন্ধুকে জড়িয়ে ধরে অভিনন্দনও জানান। মাঠের মাঝখানে মেসিকে জড়িয়ে ধরে ঠিক কী বলেছিলেন ওই সময়?

মাঠের লড়াই শেষে আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন মেসি ও নেইমার দুই জনই। তবে সব আনুষ্ঠানিকতার শেষে তাদের দেখা গেছে সেই চেনা চেহারায়। এক সঙ্গে অনেকটা সময় আড্ডা মেরেছেন লিওনেল মেসি ও নেইমার। ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা দ্বৈরথ ছাপিয়ে তাদের রয়েছে মধুর এক বন্ধুত্বের সম্পর্ক রয়েছে যা খুব কম মানুষেরই অজানা।

যার শুরুটা হয়েছিল নেইমার বার্সেলোনায় যোগ দেওয়ার পর থেকেই। সময়ের পরিক্রমায় নেইমার ক্লাব ছেড়ে গেলেও তাদের সম্পর্কে এখনো অটল। তাই কোপা আমেরিকার ফাইনালে হেরে দুঃখ ভারাক্রান্ত নেইমার ছুটে যান মেসির কাছে। লম্বা সময় ধরে আলিঙ্গনে সাবেক সতীর্থকে জানিয়েছেন শুভেচ্ছা।তবে জাতীয় দলের হয়ে এটি মেসির প্রথম শিরোপা জয়ে। নিজেদের পরাজয়ে হতাশ নেইমার খুশি হয়েছেন মেসির অর্জনে। সমর্থকরা বিভিন্ন উপলক্ষে তুলনা টেনে আনলেও মেসি ও নেইমারের মধ্যকার সম্পর্কে সেটা কখনোই প্রতিফলিত হয়নি। নেইমারের কাছে বরাবরইমেসি বড় ভাই সমতুল্য। যার কাছ থেকে তিনি শিখেছেন, যা তাকে করেছে সমৃদ্ধ। ফাইনাল শেষে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ইনস্টাগ্রামে আর্জেন্টিনা অধিনায়কের প্রতি নেইমার জানিয়েছেন শ্রদ্ধা। বন্ধু ও ভাই মেসির অর্জনে নিজের উচ্ছ্বাসও প্রকাশ করেছেন বটে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *