জমিয়তের জোট ছাড়ার অন্য কারণ জানালো বিএনপি

একে তো করোনাকাল চলছে, তার ওপর আবার কড়া নাড়ছে ঈদুল আজহা তথা কোরবানির ঈদ। এমন সময় দীর্ঘদিন বিএনপি জোটে থাকা জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম

বাংলাদেশ জোট ছাড়ার ঘোষণা দেয় বুধবার। তবে এর পেছনে আওয়ামী লীগ সরকারের হাত থাকার ইঙ্গিত দিলেন ২০ দলীয় জোটের সমন্বয়ক নজরুল ইসলাম খান।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই সদস্য বলছেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষেই জোট ছাড়ার সিদ্ধান্ত জানিয়েছে জমিয়ত।

তারা কেন জোট ছেড়েছে, তা তো এর মাধ্যমে পরিষ্কার। তবে ইসলামপন্থী এই দলটির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মাওলানা বাহাউদ্দিন জাকারিয়া বলছেন অন্য কথা।

২০ দলীয় জোট ছাড়ার কারণ হিসেবে তিনি উল্লেখ করেন, জোটে শরিক দলের যথাযথ মূল্যায়ন করা হয় না, শরিকদের সঙ্গে পরামর্শ না করে উপ-নির্বাচন বর্জন করা,

আলমদের গ্রেপ্তারের প্রতিবাদ না করা, জমিয়ত মহাসচিব নূর হোসেন কাসেমীর মৃত্যুতে বিএনপির সমবেদনা না জানানো ও তার জানাজায় শরিক না হওয়া তাদের জোট ত্যাগের কারণ।

এ বিষয়ে বিএনপির নজরুল ইসলাম খান বলেন, তাদের অভিযোগ ঠিক নয়। জোটের কার্যক্রম, সিদ্ধান্তসহ সবকিছু শরিকদের সঙ্গে আলোচনা করে চূড়ান্ত করা হয়।

তাছাড়া বুঝা যাচ্ছে- জমিয়তের অনেকে গ্রেপ্তার রয়েছেন, মাদ্রাসাও খুলতে পারছেন না। এ রকম বিভিন্ন কারণে তারা এখন জোট ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এতে তাদের নেতা-কর্মী ও শিক্ষকরা মুক্তি পেলে বন্ধুপ্রতিম দল হিসেবে আমরা খুশিই হব। বিএনপির এমন বক্তব্যের বিষয়ে জানতে চাইলে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি

জমিয়ত নেতা মাওলানা বাহাউদ্দিন জাকারিয়া। তবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে দলটির নেতাদের বৈঠকের বিষয়টি স্বীকার করেছেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জমিয়তের সিনিয়র একজন নেতা।এর আগে বিএনপি জোট ছাড়া দলগুলোর মধ্যে রয়েছে- ইসলামী ঐক্যজোট (একাংশ), বাংলাদেশ ন্যাপ, এনডিপি, এনপিপি, লেবার পার্টি (ক্ষুদ্রাংশ)।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *